অগাস্ট 15, 2020

প্রথমে গত সপ্তাহের ঘটনাবলির পর্যালোচনা :

  • ইউরো/মার্কিন ডলার। লেবার ডিপার্টমেন্ট থেকে ডেটার ওপর ভিত্তি করে আশাবাদীরা বলছেন যে মার্কিন অর্থনীতি পুনরুদ্ধার গতি পেয়েছে। অতিমারি-কবলিত শ্রম বাজারের পুনরুদ্ধার শুরু হয়েছে এবং সম্ভবত এটা সংকটের সবচেয়ে খারাপ দশা পেরিয়ে এসেছে। জুলাইয়ে বেকারির পতন ঘটেছিল 10.2 শতাংশে (এপ্রিলের শীর্ষ 15 শতাংশের তুলনায়)। 1.8 মিলিয়ন মানুষ জুলাইয়ে কাজে ফিরে গেছেন, যে প্রবণতা টানা তিন মাস ধরে চলছে।
    কিন্তু অন্যদিকে, তিন মাসে 9 মিলিয়ন কাজের ভেতরে পুনরুদ্ধার হয়েছে মাত্র 43 শতাংশ, মার্চ-এপ্রিলে কাজ হারিয়েছেন 21 মিলিয়ন মানুষ। এবং 15.5 মিলিয়ন মার্কিন এখনও বেকার ভাতা পাচ্ছেন, যা পূর্ববর্তী বৈশ্বিক আর্থিক সংকটের সর্বাধিকের (6.6 মিলিয়ন) চেয়ে দ্বিগুণ বেশি।
    বাজার অপেক্ষা করছে কিউই-র পরের ধাপের জন্য – লিকুইডিটি এবং ফিসকাল স্টিমুলাসের অন্যান্য পন্থা দিয়ে অর্থনীতিকে মদত দেওয়া হচ্ছে, কিন্তু ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকরা কংগ্রেসে ঐকমত্য খুঁজে পায়নি। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পরের সাহায্য প্যাকেজ মার্কিনদের জন্য বেশি ইনফ্লেট করতে চান না, তাঁর বিশ্বাস, এর ফলে নির্ভরশীলরা সরকারের ঘাড়ের ওপর বসে থাকবে। কিন্তু তিনি আসন্ন মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে পোস্টাল ভোটিং বাতিলের বিনিময়ে ডেমোক্র্যাটদের কনসেশন দিতে রাজি।
    বোঝাপড়া চলছে, এবং এরকম একটি অবশ্যম্ভাবী ছিল না এমন পরিস্থিতিতে বাজারগুলোকে ‘অপেক্ষা করি ও দেখি’ মানসিকতা গ্রহণ করতে হয়েছে। যদিও S&P500 সূচক টানা বৃদ্ধি হচ্ছে, যদিও এটা তত তীব্রভাবে বাড়ছে না। ৩০-বছরের ইউএস ট্রেজারি বন্ডের ফসল একটি দুর্বল নিলামের পর বে়ড়েছে মনে হয়েছিল, কিন্তু তারপর অতিমারি সংক্রান্ত খারাপ পরিস্থিতি এবং দুর্বল নিয়োগ তথ্যের সঙ্গে জড়িত ঝুঁকি ভাবনার সঙ্গে এর পতন ঘটেছিল। চীন থেকে সর্বশেষ ম্যাক্রোইকোনমিক ডেটার হতাশা ঝুঁকি ভাবনার বিকাশে কোনো অবদান রাখেনি।
    সাধারণভাবে, গোটা বোর্ড জুড়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। এর ফলে বুল ও বিয়ার উভয়েই স্থির করেছে সক্রিয় কার্যকলাপ শুরু করবে না, বিচের কোনো জায়গায় গ্রীষ্মের শেষ মাসটা খরচ করবে। ইউরো/ইউএসডি জোড়া তিন সপ্তাহে 1.1700-1.1910 সাইড করিডোরের ওপরে যেতে পারেনি, উপরন্তু, ওঠানামার সীমানা হয়ে উঠেছিল এমনকি সংকীর্ণতর 1.1710-1.1865, সর্বাধিক তীব্রতা 155 পয়েন্ট অতিক্রম করেনি, এবং এই শান্ত সপ্তাহ শেষ করেছে 1.1840-এ।
  • জিবিপি/মার্কিন ডলার। ভবিষ্যদ্বাণী, যা সাত দিন আগে ঘোষিত হয়েছিল, প্রায় নিখুঁত হয়েছে : দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে যুক্তরাজ্যের জিডিপি হ্রাস পেয়েছে 20.5 শতাংশ। (তুলনার জন্য, ওই একই সময়ে ইউরোজোন অর্থনীতির পতন ঘটেছে 12.1 শতাংশ)। যদিও, এতে পাউন্ডের কোটে কোনো প্রভাব পড়েনি। যেমন আগেই বলা হয়েছে, জিডিপি/মার্কিন ডলার জোড়া সম্প্রতি স্বাধীনভাবে চলা বন্ধ করেছে এবং উত্থানের সময় মনোযোগ দিয়ে ইউরো/মার্কিন ডলারকে অনুসরণ করেছে। সুতরাং, এটা যদি পূর্বে চলাফেরা করেছিল 1.2980-1.3185-এর মধ্যে দুসপ্তাহ আগে, এখন এর বাণিজ্য বিস্তার সংকীর্ণ হয়েছে 1.3000-1.3140-এ, জোড়াটি শেষ করেছে 1.3085-এ।
  • মার্কিন ডলার/জেপিওয়াই। গত সপ্তাহে, অধিকাংশ বিশেষজ্ঞ, H4-এ গ্রাফিক্যাল অ্যানালিসিস দ্বারা সমর্থিত, আশা করেছিলেন যে জোড়াটি ফের 106.40 স্তরের স্বাদ পাওয়ার চেষ্টা করবে, এবং যদি সফল হয়, এটা সেখানে থামবে না, আরও এগিয়ে যাবে। এবং ঠিক এটাই ঘটেছে : 30-বছরের ইউএস ট্রেজারি সিকিউরিটির ফসলে বিকাশের প্রেক্ষাপটের বিপরীতে জোড়াটি উঠেছিল, এবং ভেঙেছে 106.40-এর রেজিস্ট্যান্সের মধ্য দিয়ে, পৌঁছেছিল 107.00 উচ্চতায়। যদিও, ডলারের বিকাশ দ্রুত থেমে গিয়েছিল, এবং জোড়াটি নীচের দিকে নেমে যায়, পাঁচ-দিনের পর্ব শেষ করে শক্তিশালী মাঝারি মেয়াদের সাপোর্ট রেজিস্ট্যান্স স্তর 106.60-এ।
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। টানা দুসপ্তাহ 12000 ডলারের উপরে উঠতে পারল না বিটকয়েন। আরেকটা চেষ্টা করা হয়েছিল, যেমন মাঝে-মধ্যেই করা হয়, রবিবার থেকে সোমবার রাতে এবং সেটা ব্যর্থ হয়েছিল। তারপর, যা প্রায়শই ঘটে, নীচের দিকে একটা শক্তিশালী রিবাউন্ড ছিল, যার ফলে বিটিসি/মার্কিন ডলার জোড়া প্রকৃতার্থে বুধবার, 12 আগস্ট পৌঁছেছিল 11000 ডলার স্তরে। আমরা ইতিমধ্যে লিখেছি যে বিটকয়েনের জন্য এই দিগন্ত হয়ে উঠেছিল একটি শক্তিশালী নতুন সাপোর্ট, যা প্রধান ক্রিপ্টোকারেন্সির জন্য এত কঠিন যে 12000 ডলারের রেজিস্ট্যান্স অতিক্রম করতে পারেনি।
    বিটকয়েনের পতন এসেছিল মার্কিন সরকারের বন্ড ইয়েল্ডের উত্থানের মধ্যে, সেই একই সময়ে যখন সোনার মূল্য প্রায় 10 শতাংশ পড়েছে। ওই একই সময়ে, বিটিসি-র জন্য সামগ্রিক প্রেক্ষাপট ছিল খুবই আশাপ্রদ। সাত দিনে ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেটের মোট ক্যাপিটালাইজেশন বেড়েছিল 13 বিলিয়ন ডলার, হয়েছিল প্রায় 370 বিলিয়ন ডলার। 10 দিনে শুধু গ্রেস্কেল ফান্ডই উঠিয়েছিল 1 বিলিয়ন ডলার, যা 2020-এর গোটা দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের চেয়ে বেশি। মাইক্রোস্ট্র্যাটেজি ইনকর্পোরেটেড, যা ব্যাবসা বুদ্ধিমত্তার অন্যতম একটি স্তম্ভ, বিটকয়েনকে তাদের প্রধান সংরক্ষিত সম্পদ হিসেবে ঘোষণা করেছে এবং 21454 বিটিসি কিনেছে 250 মিলিয়ন ডলারে। এই পদক্ষেপ সম্পর্কে সিইও মাইকেল সেইলর বলেছেন যে ‘বিটকয়েন, তাঁদের মতামতে, হল সঞ্চয়ের একটি বিশ্বস্ত উপায় এবং দীর্ঘমেয়াদি বিকাশের সম্ভাবনাযুক্ত একটি আকর্ষণীয় বিনিয়োগ সম্পদ যা নগদ হাতে রাখার অনেক উপরে।’
    \শুক্রবার, 14 আগস্ট সন্ধ্যার মধ্যে, বিটকয়েন তার অবস্থান পুনরুদ্ধার করে এবং ফিরে আসে গত সপ্তাহের শেষে এটা ঠিক যেখানে ছিল, সেখানে – 11750 ডলার অঞ্চলে, ফের দেখাচ্ছে শূন্য লাভ। কিন্তু ইথেরিয়াম, যে সম্ভাবনার দিকে মনোযোগ দেওয়ার বিষয়ে আমরা বারবার বলেছি, ফের একবার তার বিনিয়োগকারীদের সন্তুষ্ট করেছে, 13 শতাংশ বৃদ্ধি এবং 400 ডলার স্তরের ওপর পা রেখেছে। যাইহোক, উপরে উল্লেখিত গ্রেস্কেল ফান্ডও দেখিয়েছিল সক্রিয় আগ্রহ এই শীর্ষ অল্টকয়েনে, এসইসি-র (ইউএস সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন) কাছে একটি আবেদন পেশ করেছে একটা ইথেরিয়াম ট্রাস্ট রেজিস্টার করার জন্য।

 

আগামী সপ্তাহের অনুমানের ক্ষেত্রে, বেশকিছু সংখ্যক বিশেষজ্ঞের মতামতের সংক্ষেপের পাশাপাশি টেকনিক্যাল ও গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণের বিভিন্ন পদ্ধতির ভিত্তিতে আমরা বলতে পারি :

  • ইউরো/মার্কিন ডলার। মাত্র একটি পরিষ্কার ব্রেকডাউন 1.1700-1.1910 চ্যানেলে একদিকে অথবা অন্যদিকে হলেই প্রাধান্যর প্রবণতা সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা দিতে পারে। এর মধ্যে, মৃতপ্রায় ক্রিয়াকলাপের মধ্যে, ট্রেন্ড ইন্ডিকেটররা ধারাবাহিকভাবে উত্তর দিকে তাকিয়েছেন – এঁরা হলেন H4 –এ 100 শতাংশ এবং D1-এ 70 শতাংশ। অসিলেটরদের মধ্যে এই চিত্র কিছুটা আলাদা। এবং যদিও H4-এ তাঁদের 75 শতাংশ এবং D1-এ 70 শতাংশ এখনও সবুজ, বাকিরা ইতিমধ্যে সংকেত দিয়েছেন জোড়াটি অতিরিক্র ক্রীত, যা প্রবণতার বিপরীতে শক্তিশালী সংকেত অথবা একটি বিশাল আকারের নিম্নমুখী সংশোধন।
    H4-এ গ্রাফিক্যাল অ্যানালিসিস 1.1700-1.1910-এর ভেতরে সাইডওয়ে চলাফেরার ধারাবাহিকতা এঁকেছে। কিন্তু D1-এর অনুমান মতে, 1.1700-এ ফের একবার সাপোর্টে ঠেলা দিলেও, হয়তো উপরে যাবে – প্রথমে 1.1960-এ রেজিস্ট্যান্সে এবং তার পর 1.2100 উচ্চতায়।
    30 শতাংশ বিশেষজ্ঞও আশা করেন ডলারের আরও দুর্বলতা এবং জোড়াটির বিকাশ। H4-এ গ্রাফিক্যাল অ্যানালিসিসের অনুমানের সঙ্গে 25 শতাংশ বিশ্লেষক সম্মত। বাকি 45 শতাংশ অপেক্ষা করছেন জোড়াটির প্রথমে 1.1450 সাপোর্টে ফিরে আসা ও তারপর 1.1240 অঞ্চলে পতনের জন্য। এটা ঘটবে, যদিও, খুব দ্রুত নয়, কিন্তু এক সপ্তাহের ভেতরে। উপরন্তু, মাঝারি মেয়াদে, এই পরিস্থিতি ইতিমধ্যে সমর্থন করেছেন প্রায় 60 শতাংশ বিশ্লেষক।
  • জিবিপি/মার্কিন ডলার। ‘ইউরো ও পাউন্ড উভয়েই’ – এটাই এই সপ্তাহে জিবিপি/মার্কিন ডলার জোড়ার জন্য অনুমান দেখাচ্ছে। ঠিক আছে, যদি এটা সমান না হয়, এটা সমানের মতো দেখাচ্ছে। ইউরো/মার্কিন ডলারের ক্ষেত্রে, 45 শতাংশ বিশেষজ্ঞ মনে করেন, আগামী সপ্তাহগুলিতে এই জোড়াটি নামবে এবং 60 রয়েছেন মাঝারি মেয়াদে। 20 শতাংশের মতে সাইড ট্রেন্ড থাকবে এবং ৩৫ শতাংশ মনে করেন জোড়াটির আরও বৃদ্ধি।
    ট্রেন্ড ইন্ডিকেটরদের জন্য, H4-এ 90 শতাংশ এবং D1-এ 95 শতাংশের রং সবুজ। H4-এ অসিলেটরদের ভেতরে 60 শতাংশ সবুজ এবং 40 শতাংশ রয়েছেন নিরপেক্ষ-ধূসর অবস্থানে। D1-এ 60 শতাংশ সবুজ, 35 শতাংশ নিরপেক্ষ-ধূসর এবং 5 শতাংশ ইতিমধ্যে তাদের রং বদলে লাল করেছে।
    সাপোর্ট স্তর হল 1.3045, 1.2980, 1.2900, 1.2765 ও 1.2670, রেজিস্ট্যান্স 1.3125, 1.3185, 1.3200 ও 1.3285।
  • মার্কিন ডলার/জেপিওয়াই। সোমবার, 17 আগস্ট, দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে জাপানের জিডিপি ডেটা প্রকাশ পাবে, যা, অনুমান অনুযায়ী, হ্রাস হয়েছে মাত্র 7.6 শতাংশ, যা হল উন্নয়নশীল দেশগুলির মধ্যে শ্রেষ্ঠ ইন্ডিকেটর এবং ফের একবার প্রমাণ হল শুধু জাপানি ইয়েন নয়, বরং সামগ্রিকভাবে গোটা দেশ অর্থনৈতিক ও আর্থিক সংকট থেকে উঠে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত ১০০ শতাংশ বিশেষজ্ঞ অনুমান করেছেন ডলারের শক্তিবৃদ্ধি এবং আগামী দিনগুলিতে এই জোড়াটির বিকাশ, প্রথমে 107.55-এ এবং তারপর 108.10-এ। এটা মনে রাখতে হবে যে 106.00-108.10 অঞ্চল হল সেই পরিধি যেখানে গত 20 সপ্তাহ ধরে জোড়াটি 75 শতাংশ সময় বাণিজ্য করেছে। এবং আপাতভাবে সেজন্যই বিশেষজ্ঞদের বিশ্বাস যে এই বিরতিতে জোড়াটি নিশ্চিতভাবে কিছুদিন টিকে থাকবে। যদিও, D1-এ 15 শতাংশ অসিলেটর ইতিমধ্যে সংকেত দিয়েছেন যে জোড়াটি অতিরিক্ত ক্রীত, এবং পজিশন খোলার সময় এই তথ্য অবশ্যই বিবেচনায় রাখতে হবে।
    এটাই হিসেবে রাখা আবশ্যক যে আগস্টের শেষ-সেপ্টেম্বরের আরম্ভের জন্য বিশ্লেষকদের অনুমান তীক্ষ্ণভাবে পরিবর্তন হচ্ছে, এবং তাঁদের 55 শতাংশ অপেক্ষা করছেন প্রবণতা বিপরীত হওয়ার জন্য এবং জোড়াটির নতুন পতনের। লক্ষ্য হল 105.30 ও 104.20।

  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। আপনারা যেমন জানেন, যে কোনো পরিস্থিতি থেকে বেরনোর অন্তত দুটি পথ আছে। বিটকয়েনের ক্ষেত্রে সেটাই ঘটেছে – একটি পথ উপরে, অন্য পথটি নীচে।
    প্রখ্যাত বিশ্লেষক ও টিভি প্রেজেন্টার ম্যাক্স কাইজারের মতে, প্রধান ক্রিপ্টোকারেন্সির মূল্যের বিকাশ ইতিবাচকভাবে প্রভাবিত হয়েছে ক্রমবর্ধমান ভূরাজনৈতিক বিপদের প্রেক্ষাপটের বিরুদ্ধে এশিয়া থেকে পুঁজি প্রত্যাহার দ্বারা। এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চীনের খারাপ সম্পর্কের ফল হবে, চীনের নাগরিকদের আকাঙ্ক্ষা হবে তাদের পুঁজি বিদেশে নিয়ে যাবার। এবং এটা ক্রিপ্টোকারেন্সি দিয়ে করাটাই সহজতম পথ।
    আরও একটি মৌলিক বিষয় বিটকয়েনের পক্ষে রয়েছে, সেটা হল বৈশ্বিক অর্থনীতিতে 10 ট্রিলিয়ন ডলার ঢুকে রয়েছে কোয়ান্টিটেটিভ ইজিং (কিউই) প্রোগ্রামের রূপে। মনে রাখতে হবে, দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে, মার্কিন জিডিপির পতন হয়েছে সমগ্র ইতিহাসে বৃহত্তম – বিয়োগ 32.9 শতাংশ, যা বোঝায় যে অতিরিক্ত নরম আর্থিক নীতি ধারাবাহিক থাকবে অন্তত 2020-এর শেষ পর্যন্ত। বেশকিছু বিশেষজ্ঞের মতে, এটা বিটিসি/মার্কিন ডলার জোড়ার বৃদ্ধি অপরিহার্য করেছে। উদাহরণস্বরূপ, ওয়াল স্ট্রিট বর্ষীয়ান রাউল পলের বিশ্বাস, আগামী দুবছরে বিটকয়েন পৌঁছবে 100000 ডলারে। এবং এখানে, এক প্রথম সারির গুরুত্বপূর্ণ ইন্ডিকেটর হতে পারে বিটকয়েনের সঙ্গে এরকম স্টক ইন্ডাইসের আন্তঃসম্পর্ক যেমন নাসডাক ও S&P500।
    কিন্তু একটা বিপরীত চিত্রও আছে। সেটা বুঝতে হলে, একবার একবছর আগের বিটিসি মার্কিন ডলার চার্টের দিকে তাকান। কিন্তু উপরের দিকে যাওয়ার কয়েকটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর, কোট প্রথমে নামে 10000 ডলারে, এবং তারপর সবমিলিয়ে নেমে যায়, মার্চের গোড়ায় আসে 3800 ডলারে। এবার হয়তো সেরকম কোনো বিপর্যয় ঘটবে না, কিন্তু জোড়াটির 10000 ডলার দিগন্তে সংশোধন যথেষ্ট বাস্তব। এ ছাড়া, ক্রিপ্টো ফিয়ার ও গ্রিড ইনডেস্ক তিন সপ্তাহ ধরে ছিল 77-78 পয়েন্টের স্তরে, যা, এর ডেভেলপারদের মতে, বোঝায় বাজার রয়েছে শক্তিশালী অতিরিক্ত ক্রীত সেন্টিমেন্টে এবং এটা সংশোধন দরকার।
    কৌতূহলের বিষয়, যখন একটি সাপ্তাহিক অনুমান প্রদান করা হয়, অধিকাংশ বিশেষজ্ঞ (55 শতাংশ) বিশ্বাস করতে চান যে বিটিসিইউএসডি জোড়া 12000 ডলারের রেজিস্ট্যান্স ভাঙবে এবং উঠবে 12500-13000 অঞ্চলে। যদিও মাসিক চিত্র হল, 60 শতাংশ বিশ্লেষকের আশা, বিটকয়েন পড়ে যাবে 9500-10000 ডলারে এবং সেখানে দীর্ঘ অবস্থান থাকবে।

 

নর্ডএফএক্স অ্যানালিটিক্যাল গ্রুপ

 

বিজ্ঞপ্তি : এসব তথ্য আর্থিক বাজারে কাজের জন্য বিনিয়োগ বা পরামর্শ হিসেবে কোনো সুপারিশ নয় : এগুলি একমাত্র তথ্যমূলক উদ্দেশ্যে। আর্থিক বাজারে ট্রেডিং খুবই ঝুঁকিপূর্ণ এবং এর ফলে ডিপোজিটকৃত ফান্ডের পরিপূর্ণ ক্ষতি হতে পারে।


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)