ফেব্রুয়ারী 22, 2020

প্রথমে গত সপ্তাহের ঘটনাবলির পর্যালোচনা

  • ইউরো মার্কিন ডলার। ফেব্রুয়ারির শুরু থেকে ডলার ইনডেক্স ইতিমধ্যে অর্জন করেছে 2.5 শতাংশ, মে 2017-র পর সর্বোচ্চে পৌঁছেছে। ইউরো জমি হারাচ্ছে। 1 জানুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে, ডলারের অগ্রগতি ইউরোপিয়ান কারেন্সিকে দুর্বল করেছে 440 পয়েন্টে। শুধুমাত্র গত তিন সপ্তাহে টানা পতনে হারিয়েছে প্রায় 300 বা 2.7 শতাংশ।
    এই সময়ে কী চলছে সে বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা অনেক কারণ উত্থাপন করেছেন, সবচেয়ে বেশি কারণ নির্ণীত হয়েছে করোনা ভাইরাস সম্পর্কে। কিন্তু এমনকি এখানে, যখন তাঁরা একই বিষয় সম্পর্কে কথা বলেন, তাঁরা বিপরীত সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পেরেছেন। এর ফলে, কারো মতে, ডলার হল নিরাপদ-স্বর্গ কারেন্সি, যখন অন্যরা বলছেন, বিপরীতভাবে, একে বরং ঝুঁকিপূর্ণ সম্পদ বিবেচনা করুন যা বিনিয়োগকারীদের ক্ষতির সম্মুখীন করবে মহামারি যেই উত্তুঙ্গ স্তর পেরিয়ে যাবে এবং চীনা অর্থনীতি পুনরুদ্ধার শুরু করবে। এটা খুব সম্ভব যে এটা অনতি ভবিষ্যতেই শুরু হবে, কেননা চীনা কর্তৃপক্ষ শুধু মহামারির বিরুদ্ধে লড়াই করতে সর্বপ্রচেষ্টা শুরু করেনি, বরং এইসঙ্গে উৎপাদন চালু রেখেছে এবং আর্থিক নীতি সহজ করেছে। এই পন্থাগুলির মধ্যে একটি ছিল পিওপল’স ব্যাংক অব চায়না য়ুয়ানের ওপর সুদের হার 4.15 শতাংশ থেকে কমিয়েছে 4.05 শতাংশে বৃহস্পতিবার, 20 ফেব্রুয়ারি।
    আমরা অন্য কিছুই করতে পারি না এই বিশেষজ্ঞদের বিশ্বাসকে গ্রহণ করা ছাড়া যে ইউরো/মার্কিন ডলার জোড়ার পতনের অনুঘটক হল প্রথমে ইউরোপিয়ান অর্থনীতির দুর্বলতা এবং খুব কম সুদের হার, যা বিনিয়োগকারীদের কাছে ডলারকে অনেক বেশি আকর্ষক করেছে। এ ছাড়া চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বাণিজ্য নিয়ে মতান্তরও ইউরোর বিরুদ্ধে গেছে।
    বিশ্লেষকদের অধিকাংশ (60 শতাংশ) গত সপ্তাহে ইউরোর আরও পতনের দিকে ছিলেন, যা সাপোর্ট করেছে ট্রেন্ড ইন্ডিকেটরের 100 শতাংশ এবং অসিলেটরের 65 শতাংশ। একই সময়ে, বাকি 35 শতাংশ ইতিমধ্যেই সংকেত দিয়েছেন যে ইউরোপিয়ান অর্থনীতি অতিরিক্ত বিক্রীত ছিল। আপনি যদি ইউরো/মার্কিন ডলার কোট দেখেন, এরা নিখুঁতভাবে শক্তিগুলির বণ্টনকে প্রতিফলিত করে। প্রথমে, জোড়াটি নীচে নেমেছিল, তারপর, সপ্তাহের মাঝখান থেকে, এটির প্রবণতা ছিল পাশের দিকে, 1.800 অঞ্চলে ঘোরে সাপোর্ট বা রেজিস্ট্যান্সে। বহু অসিলেটরের রিডিং হল, যেমন এমএসিডি, প্রবণতা বিপরীত হওয়ার আশায় দীর্ঘ পজিশন ধারকদের আশা দিয়েছিল। যদিও সেটা ঘটেনি, শুধু পতন বন্ধ হয়েছে। এবং একমাত্র পাঁচ-দিনের পর্বের একেবারে শেষে, জোড়াটি তীক্ষ্ণ লাভ দেয়, শেষ হয়ে 1.0848-এ এবং এভাবে সপ্তাহের মোট ফলকে শূন্যে পরিণত করে।
  • জিবিপি/মার্কিন ডলার। যুক্তরাজ্যও পাশাপাশি ইউরোপিয়ান অর্থনীতিকে দুর্বল করতে অবদান জুগিয়েছে : ব্রেকিস্টের পর, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের বাজেট ঘাটতি হয়েছে €75 বিলিয়ন, এবং কেউ বুঝতে পারছে না এই মারাত্মক ক্ষতি কীভাবে সামলানো যাবে। ইউরোর মতো নয়, ব্রিটিশ কারেন্সি নিজে, বলতে পারে ডলারের বিপরীতে থিতু হবে, কেনা গত দশকের নভেম্বর 2019-এর পর চলেছে 1.3000 লাইনের সঙ্গে।
    ফেব্রুয়ারিতে বিয়ার্স বারবার চেষ্টা করেছে ব্রিটিশ রক্ষণকে ধাক্কা দিতে, পাউন্ডকে নামিয়েছে 1.3000 অঞ্চলের নীচে। জোড়াটি এমনকি পৌঁছেছিল স্থানীয় নীচে 1.2850-তে গত সপ্তাহে, কিন্তু ... এরপর এটা ফের ঘুরে দাঁড়ায়, এবং সপ্তাহ শেষ করে 1.2960-তে।
  • মার্কিন ডলার/জেপিআই। গত সপ্তাহের অনুমান যা দেওয়া হয়েছিল, বিশেষজ্ঞদের অধিকাংশকে (70 শতাংশ), সমর্থন করেছে H4 ও D1-এর গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণ, তাঁদের মতামত ঘুরেছে উত্তরে। এবং তাঁরা সঠিক প্রমাণিত হয়েছেন : জোড়াটি শুধু 110.00 স্তরের মাইলফলক স্তরই ভাঙেনি, বরং এমনকি বেশ কয়েকটি স্তরের রেজিস্ট্যান্সের নোটিশ ছাড়াই পৌঁছেছে 112.20 উচ্চতায়, পৌঁছেছে এপ্রিল 2019-এর উচ্চতায়। মূল কারণ হল নিরাপদ-স্বর্গ কারেন্সি হিসেবে ইয়েনের সুদ বেশ কমে যাওয়ায়, করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির উন্নয়নের বিপরীতে, এবং এর ফলে, মার্কেটের প্রবণতা হয়েছে ঝুঁকিপূর্ণ সম্পদে। মহামারিতে যেসব কোম্পানি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের চিনা কর্তৃপক্ষের সমর্থনের পদক্ষেপও ইয়েনের বিরুদ্ধে কাজ করেছে।
    জোড়াটি 112.00 উচ্চতায় পৌঁছনোর পর, একটি সংশোধন উদ্ভূত হয়েছে, এবং সপ্তাহের চূড়ান্ত সুর শোনা গেল 111.60 স্তরে।  
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। লংহ্যাশ কোম্পানি বিটকয়েন বিক্রি ও ক্রয়ের বিস্তারিত তথ্য বিশ্লেষণ করেছে গত দুবছর ধরে এবং খুব কৌতূহলক উপসংহারে পৌঁছেছে। গবেষকরা দেখেছেন যে বিটকয়েনের সর্বনিম্ন গড় মূল্য দেখা গেছে শুক্রবার সকাল 6 টায়, জিএমটি-তে। প্রকৃতপক্ষে, এর অর্থ দীর্ঘ পজিশন খোলার এটাই শ্রেষ্ঠ সময়। সোমবার অথবা মঙ্গলবার, মধ্যরাতে ইউনাইটেড টাইম (ইউটিসি), বিটিসি-র দাম হয় শুক্রবারের চেয়ে গড়ে 170 ডলার বেশি। এতে দেখা যায় যে সোমবার বা মঙ্গবার হল সেরা সময় শুক্রবার থেকে বেরনোর দীর্ঘ বা ছোট্ পজিশনে প্রবেশের পরের শুক্রবার পর্যন্ত (যখন পরিসংখ্যান অনুযায়ী মূল্য থাকবে নিম্নতর)।
    একই সময়ে, বিশ্লেষকরা সতর্ক করেছেন যে ক্রিপ্টো মার্কে খুব সাংঘাতিক, সেজন্য এরকম স্টাডির ফলাফলকে বিনিয়োগ পরামর্শ হিসেবে বিবেচনা করা উচিত নয়।
    এবং এটা খুব সঠিক মন্তব্য, বিশেষ করে আপনি যদি গত সপ্তাহের ফলাফলের দিকে তাকান। বিটকয়েনের মূল্য 14 ফেব্রুয়ারি, শুক্রবার সকালে ছিল সত্যিই কম। এবং যদি কোনো ট্রেডার ওই পয়েন্টে লং পজিশনে ওপেন করেন, তিনি দিনের শেষে ভালো লাভ পােন। কিন্তু তিনি যদি 17 ফেব্রুয়ারি, সোমবার পর্যন্ত পজিশন ওপেন রেখে দেন, তাহলে সামান্য কিছু হারাবেন, তখন থেকে বিটকয়েন প্রায় 600 ডলার পড়েছে।
    গত সাত দিনে মূল ক্রিপ্টোকারেন্সি বেশ কয়েকবার চেষ্টা করেছে 10000 ডলারের ওপরে পা রাখতে, কিন্তু কোনো সাফল্য পায়নি। বিটিসি ইউএসডি জোড়ার স্থানীয় নিম্ন ছিল স্থায়ী 9.290 ডলারে এবং এই পতনের কারণগুলির মধ্যে, প্রাথমিকভাবে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃপক্ষের, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, ফেড প্রধান পাওয়েল এবং অর্থমন্ত্রী এমনুচিন সহ, বিটকয়েনে চাপ দৃঢ়করণ।
    বলা বাহুল্য, যখন নীচে যায়, মূল ক্রিপ্টোকারেন্সি শীর্ষ অল্টকয়েনগুলিকে টানে, এর অন্তর্ভুক্ত এথেরিয়াম (ইটিএইচ/ইউএসডি), লাইটকয়েন (এলটিসি/ইউএসডি), রিপল (এক্সআরপি/ ইউএসডি) এবং ক্রিপ্টো ফিয়ার ও গ্রিড ইনডেক্স ফিরে এসেছে ‘গ্রিড’ অবস্থা থেকে ‘ফিয়ার’ অবস্থায়।

 

আগামী সপ্তাহের অনুমানের ক্ষেত্রে, বেশকিছু সংখ্যক বিশেষজ্ঞের মতামতের সংক্ষেপের পাশাপাশি টেকনিক্যাল ও গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণের বিভিন্ন পদ্ধতির ভিত্তিতে আমরা বলতে পারি :

  • ইউরো/মার্কিন ডলার। গ্লোবাল মার্কেট লিকুইডিটির সঙ্গে ছড়িয়ে আছে, যার অন্তর্ভুক্ত প্রধান কারেন্সি। মনে হচ্ছে গ্লোবাল ব্যাংকের কাছে আর কোনো পথ নেই শুধু সস্তা অর্থে একে পাম্প না করে অর্থনীতিকে সমর্থন ছাড়া। বিল কেনার জন্য ইউএস ফেডারেল রিজার্ভ এক মাসে খরচ করেছে 60 বিলিয়ন ডলার, ইসিবি সিকিউরিটি কিনেছে 20 বিলিয়ন ইউরোর এবং ব্যাংক অব জাপান – 80 ট্রিলিয়ন ইয়েনের। অন্যান্য দেশের রেগুলেটররা খুব একটা পিছিয়ে নেই। এবং, এই মুহূর্তে যখন বাজারে টাকা এসেছে, আমরা মূল্যের ওঠানামা একদিক থেকে আরেকদিকে দেখতে পারছি।
    আজ ডলার হল ক্লাসিক প্রতিরক্ষা আর ঝুঁকিপূণ সম্পদের মাঝখানে একটি ক্রস। এটা হয়েছে রাজনৈতিক উপাদান, মার্কিন অর্থনীতির অবস্থা এবং ফেডারেল রিজার্ভের পদক্ষেপের জন্য, যাদের সুদ কমানোর ক্ষমতা বাস্তবের চেয়ে অনেক দূরে, ইউরোপিয়ান ও জাপানের বিপরীতে।
    এইসব বিশ্লেষকদের 70 শতাংশকে অনুমোদন দিয়েছে মার্কিন কারেন্সির ধারাবাহিক বিকাশ গণনা করতে এবং এটি হ্রাস হতে পারে ন্যূনতম 1.0750 অঞ্চলে। এটা মনে রাখতে হবে যে শুক্রবার মার্কেট ক্লোজ হওয়ার ঠিক আগে এই জোড়াটির উত্তরে ক্ষণস্থায়ী যাত্রার আগে এই সার্ভে করা হয়েছিল। এটাও গুরুত্বপূর্ণ যে মার্চের জন্য অনুমানে যাওয়ার সময়, এই একই সংখ্যা – বিশেষজ্ঞদের 70 শতাংশ -  আশা করেছিলেন যে জোড়াটি ফিরবে 1.1000 স্তরে।
    ইন্ডিকেটরদের জন্য, যদি তাঁদের বিশাল সংখ্যা শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি 21 সকালে লাল রঙে চিত্রিত থাকতেন, সন্ধ্যার মধ্যে পরিস্থিতি দ্রুত বদলে যায় এবং 70 শতাংশ দখল করে সবুজ রং H4-এ। যদিও D1-এ সুবিধা এখনও আছে বিয়ার্সের সঙ্গে : প্রবণতা ইন্ডিকেটর ও অসিলেটরদের 75 শতাংশ এখনও দক্ষিণে পয়েন্ট করে। নিকটতম সাপোর্ট হল 1.0800 এবং 1.0775।
  • জিবিপি/ইউএসডি। গত তিন মাসের পিভট পয়েন্ট হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে 1.300 দিগন্ত, কিন্তু জানুয়ারি 2020 থেকে শুরু অবশ্যই বৃদ্ধি হয়েছে। সেজন্যই বিশেষজ্ঞদের 55 শতাংশ আশা করেন যে জোড়াটি ফের একবার গত সপ্তাহের নিম্ন 1.2850-এর স্বাদ পাবে এবং যদি সফল হয়, আরও পতন ঘটবে 80-100 পয়েন্ট নীচে। বিশেষজ্ঞদের 45 শতাংশ আশা করছেন জোড়াটিকে 1.3000-1.3070 অঞ্চলে পৌঁছতে শক্তিশালী করবে পাউন্ড। পরের লক্ষ্য হল 1.3120।
    সপ্তাহের শেষে D1-এর ইন্ডিকেটরদের মধ্যে মতভেদ হয়েছে, কিন্তু H4-এ ট্রেন্ড ইন্ডিকেটর ও অসিলেটরের 60 শতাংশ জোড়াটির বিকাশের ইঙ্গিত দিয়েছে।
    D1-এ গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণ আপসের বিকল্প অফার করে, যা একটি পতন এঁকেছে ফেব্রুয়ারির শেষে 1.2685 স্তরে, এবং তারপর মার্চের প্রথম দশদিনে রিটার্ন, প্রথমে 1.3000 স্তরে এবং তারপর 1.3200 উচ্চতায়।

  • ইউএসডি/জেপিওয়াই। এটা পরিষ্কার যে ইন্ডিকেটরদের অধিকাংশই তাকিয়ে আছেন। যদিও, অসিলেটরদের 15 শতাংশ ইতিমধ্যেই ইঙ্গিত দিয়েছেন জোড়াটি অতিরিক্ত বিক্রীত। D1-এর গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণ দেখায় যে জোড়াটি থাকবে 112.25-112.00 পরিধিতে সপ্তাহের শুরুতে কিছু সময়ের ন্য, তারপর এটি উপরে যাবে 112.40-112.70 অঞ্চলে।
    বিশেষজ্ঞদের 75 শতাংশের বিশ্বাস যে জোড়াটি অবশ্যই ফিরবে 109.65-110.25 অঞ্চলে, যদিও এটা হতে হয়তো দুতিন সপ্তাহ লাগবে। বাকি 25 শতাংশ বিশ্লেষণ আশা করছেন জোড়াটি উঠবে 112.40 মার্কের উপরে, লক্ষ্য 113.70।
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। গ্যালাক্সি ডিজিটালের প্রতিষ্ঠাতা তথা সিইও মাইক নভোগ্রাতজ নিশ্চিত যে 2020-এর শেষ হওয়া আগে বিটকয়েন দৃঢ়ভাবে স্থায়ী হবে ঐতিহাসিক উচ্চতায়, 20000 ডলারে। এই বিশেষজ্ঞের মতে, এখন বিটকয়েন থিতু নয়, কিন্তু এটি অবশ্যই ঐতিহাসিক উচ্চতা 20000 ডলার পার করবে বছরের শেষে, অথবা অন্তত সেখানে পৌঁছবে। এটা আরও দ্রুত ঘটতে পারে, কয়েক মাসের মধ্যে, অর্ধাংশকে ধন্যবাদ। রেগুলেটেড ক্রিপ্টো বিনিময়ের উদ্ভব এবং সংরক্ষণশীল সংস্থামূলক বিনিয়োগকারীদের দ্বারা সম্পদের দখলও প্রথম ক্রিপ্টোকারেন্সির বিকাশের জন্য ইতিবাচক উপাদান হিসেবে কাজ করবে। এইসঙ্গে, ফিয়াট কারেন্সির ধারাবাহিক ইস্যুও বিটকয়েনের দিকে কাজ করতে পারে। নভোগ্রাতজ ব্যাখ্যা করেছেন, ‘প্রধান ডিজিটাল সম্পদ, ঠিক সোনার মতো, কার্যকরী সম্পদ হিসেবে কাজ করে, বিনিয়োগকারীদের রক্ষা করছে মুদ্রাস্ফীতি এবং দেশের আর্থিক নীতি, যা  টাকার অবমূল্যায়ন ঘটায়।’
    বিটকয়েনের জন্য এমনকি এর চেয়ে আনন্দের ভবিষ্যৎ অনুমান করেছেন প্রখ্যাত বিটকয়েনপ্রেমী টিভি হোস্ট ম্যাক্স কাইজার। এই ক্রিপ্টোকারেন্সির জন্য তিনি মূল্যের অনুমান করেছেন প্রতিটি কয়েন পিছু 400000 ডলার, একবারে চার গুণ বৃদ্ধি। ইনফোয়ার্স নিউজ শো-এ অংশগ্রহণ করে কাইজার বলেছেন যে 2012 সালের 100000 ডলার ভবিষ্যদ্বাণী এখন বড্ড সংরক্ষণশীল।
    সাধারণভাবে, বিশেষজ্ঞদের 70 শতাংশ আশাবাদী, তাঁদের আশা পরের কয়েক সপ্তাহে বিটকয়েনকে দেখা যাবে 10,500-11,000 ডলার অঞ্চলে। বাকি 30 শতাংশ বিশেষজ্ঞ বিটিসি/ইউএসডি সর্বনিম্ন পতনের সীমারেখা ধরেছেন 8000 ডলার স্তরে।

 

রোমান বুটকো, নর্ডএফএক্স

 

বিজ্ঞপ্তি : এসব তথ্য আর্থিক বাজারে কাজের জন্য বিনিয়োগ বা পরামর্শ হিসেবে কোনো সুপারিশ নয় : এগুলি একমাত্র তথ্যমূলক উদ্দেশ্যে। আর্থিক বাজারে ট্রেডিং খুবই ঝুঁকিপূর্ণ এবং এর ফলে ডিপোজিটকৃত ফান্ডের পরিপূর্ণ ক্ষতি হতে পারে।


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)