ফেব্রুয়ারী 8, 2020

প্রথমে, গত সপ্তাহের ঘটনাগুলোর একটা পর্যালোচনা:

  • EUR/USD মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরিসংখ্যানগুলিকে (ISM এবং NFP সমেত) বেশ আশাব্যঞ্জক দেখাচ্ছে। গত পাঁচ দিন ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সূচকগুলি তাদের রেকর্ডের স্তরগুলিকে শুধরেছে: ডাউ জোন্স রয়েছে 29393-এ এবং S&P500 রয়েছে 3345-এ। জার্মানির উৎপাদন সংক্রান্ত অর্ডার গত পরপর তিন ধরে 0.5% পড়েছে, যা ইউরোপীয় অর্থনীতির অবস্থা সম্পর্কে আশংকাকে নিশ্চিত করেছে, যা বর্তমানে মন্দার মুখোমুখি দাঁড়িয়ে। ফলস্বরূপ, বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ইউরোজোনের কোয়ান্টিটেটিভ ইজিং (QE) নীতিকে আরও প্রসারিত করার ব্যাপারে প্রত্যাশা বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং এই আত্মবিশ্বাস বাড়ছে যে, ডলারের দাম অন্তত অপরিবর্তিত থেকে যাবে। সম্প্রতি এই বিষয়টি ফেডেরাল রিজার্ভের উপ-সভাপতি রান্ডাল কোয়ার্লার্স বলেছেন। এছাড়াও রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের আগে ডোনাল্ড ট্রাম্পও প্রত্যাশা তৈরি করেছেন, ভোটারদের বারংবার এই বিষয়টি মনে করিয়ে দিয়ে যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বেকারির সংখ্যা বর্তমানে সর্বনিম্ন স্তর 3.5%-এ আছে।
    বিশেষজ্ঞদের মতামতগুলি এবং D1-এর উপরের বেশিরভাগ সূচকগুলির কথা চিন্তা করে দেখুন, এই জুটির গত পাঁচ দিনের দরগুলির ব্যাপারে, যা নিরপেক্ষ-ধূসর ছিল: 50-50। প্রথমত, করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি সম্পর্কে ধোঁয়াশা। কিন্তু একই সময়ে, দুটি সময়সীমাতেই, H1 এবং D1-এ, অসিলেটরগুলির প্রায় 15% এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত বিক্রির ব্যাপারে সংকেত দিয়েছিল এবং প্রবণতা নিচের দিকে ঘুরে যাওয়া আসন্ন ছিল। H4-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ এই অগ্রগতির পক্ষে রায় দেয়, এর একটি অত্যন্ত মজবুত অবলম্বন 1.0990-1.1000-এ ফিরে যাবার পূর্বাভাস দিয়ে।
    ঠিক তাই-ই হয়েছিল: এই জুটি ঘুরে দাঁড়িয়েছিল এবং গত 5ই ফেব্রুয়ারী, বুধবার তা সুনির্দিষ্ট অবলম্বনে পৌঁছেছিল। এরপর 20 ঘণ্টা ধরে বুল আর বিয়ার-এর মধ্যে লড়াই চলে, যা, শেষ পর্যন্ত, পরেরটির জয়ের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়। ডলার উপরে উঠে যেতে থাকে, অন্যদিকে ইউরো পড়তেই থাকে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কমা এবং সেন্ট্রাল ব্যাংক অব চায়না-র বাজারকে অবলম্বন জোগানোর মতো বিষয়গুলি মার্কিন মুদ্রার হাতে খেলতে থাকে। ফলস্বরূপ, গত 07ই ফেব্রুয়ারী, শুক্রবার, একাধিক নিম্নস্তরের মুখগুলিকে শুধরে নিয়ে, এই জুটি 1.0940-র স্থানীয় নিম্নস্তরে একটি অবলম্বন খুঁজে পায়, এবং কারবারি সময়কালটা 1.0945-এ গিয়ে শেষ করে;
  • GBP/USD ইউরোর পর ডলারের সাপেক্ষে পাউন্ডেরও পতন ঘটে। এই জুটির উপর অতিরিক্ত একটি চাপ আসে এই উদ্বেগ থেকে যে, Brexit-পরবর্তী সময়েও UK হয় EU-এর সঙ্গে একটি বাণিজ্যিক চুক্তিতে আসতে সক্ষম হবে না।
    EUR/USD-র ক্ষেত্রে, অসিলেটরগুলির প্রায় 15% গত সপ্তাহে এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত ক্রয়ের সংকেত দিয়েছিল, এবং গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণগুলি ব্রিটিশ মুদ্রার পতনের পূর্বাভাস দিয়ে, প্রথমে 1.2970-এর হরাইজনে এবং তারপর 1.2800-র স্তরে। বস্তুত, এই জুটির পতন গত 07ই ফেব্রুয়ারী, শুক্রবার থেমে যায়, মোটামুটি নিম্নোক্ত পরিসরের মাঝামাঝি এসে – 1.2880-র অঞ্চলে;
  • USD/JPY। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের হার কমায় এবং এই সংক্রমণের উপর দ্রুত কাবু পাওয়ার প্রত্যাশা তৈরি হওয়ায় বাজারে জাপানি মুদ্রার মতো নিরাপদ আশ্রয়স্থলগুলির প্রতি আগ্রহ কমে। ফলস্বরূপ, সপ্তাহের দ্বিতীয়ার্ধে এই জুটি 110.00-এর দৃষ্টান্তমূলক স্তরকে ভেঙ্গে বেরোতে সফল হয় এবং 110.016-এর স্তরে পৌঁছে যায়। তারপর একটা প্রতিক্ষেপ দেখা যায়, এবং অন্তিম তারটি একটি শক্তপোক্ত মধ্য-মেয়াদি অবলম্বন/প্রতিরোধ অঞ্চলে থাকতে দেখা গেছে – 109.75-এর স্তরে;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি - গত সাত বছরে বিটকয়েনের জন্য সবচেয়ে সেরা জানুয়ারী ছিল। এই প্রধান কয়েনের মূল্য প্রায় 30 শতাংশ বেড়েছিল। এই সম্পদের মূলধনের মূল্য প্রায় $39 বিলিয়ন বাড়ে। বিশেষজ্ঞদের মতে, এই বৃদ্ধির মূলে ছিল ভূ-রাজনৈতিক পরিস্থিতিগুলি। মূল্য অর্ধেক হয়ে যাওয়ার দিকে এগোনও বিটকয়েনের মূল্যকে প্রভাবিত করেছিল। শেষবার বিটকয়েন এইরকম গতিশীলতা গত 2013-র জানুয়ারীতে দেখিয়েছিল। তখন এই কয়েনের মূল্য প্রায় 54 শতাংশ বেড়েছিল। এটি উল্লেখযোগ্য যে, সেই সময়েও এটি অর্ধেক হয়ে যাবার অবস্থায় ছিল।
    BTC/USD জুটিকে ঠেলে তোলার আরেকটি কারিগর হল করোনা ভাইরাস। "করোনা ভাইরাসের জন্য উদ্ভুত পরিস্থিতির কারণে এশীয় বিনিয়োগকারীরা বেশি বেশি করে ক্রিপ্টোকারেন্সি কিনছে। ডলারে পেমেন্ট করা নিষিদ্ধ হয়ে যেতে পারে, তাই বিটকয়েন এবং অন্যান্য কয়েনগুলিই একমাত্র ভরসা হতে পারে," বিজয় আইয়ার, যিনি লুনো ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জের শীর্ষস্থানীয় ম্যানেজারদের একজন, CNBC-তে এই কথা বলেন। এছাড়াও, তার মতে, বিটকয়েনের দাম “কালো” বাজারের জন্যও প্রভাবিত হয়েছে।  চীনের একাধিক কোম্পানি পণ্য রপ্তানি বন্ধ করেছে, যার জন্য কালোবাজারি বেড়েছে এবং যার কারণেই ক্রিপ্টোকারেন্সির দাম উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।
    যাই-ই হোক না কেন, অর্ধেক হওয়া যাওয়া, ভাইরাস ও স্মাগলারদের বিষয়টি সমেত, সবমিলিয়ে বিটকয়েনের দাম তার অতি কাঙ্খিত উচ্চতা $10,000-এ "ঠেলে” তুলে দেয়: গত 06ই ফেব্রুয়ারী, বৃহস্পতিবার, বেশিরভাগ বিশেষজ্ঞদের পূর্বাভাসগুলিকে মান্যতা দান করে, এই কয়েনের দাম $9,860-এর অঙ্কে পৌঁছে যায়।
    স্বভাবতই, এই শীর্ষস্থানীয় ক্রিপ্টোকারেন্সির বৃদ্ধি অন্যান্য অল্টকয়েনগুলির মধ্যেও গতি সঞ্চারিত করে। ইথিরিয়াম (ETH/USD) $223.9-এ পৌঁছায়, লিটকয়েন (LTC/USD) – $75.30-এ এবং রিপল (XRP/USD) – $0.2800-এ পৌঁছায়।

 

আগামি সপ্তাহের পূর্বাভাসের ক্ষেত্রে, একাধিক বিশেষজ্ঞদের মতামতগুলোকে, ও সেই সঙ্গে প্রযুক্তিগত ও গ্রাফিক্সভিত্তিক বিশ্লেষণের বহুবিধ পদ্ধতির ভিত্তিতে করা পূর্বাভাসগুলোকে একত্রিত করে, আমরা নিম্নোক্ত কথাগুলো বলতে পারি:

  • EUR/USD গত এক সপ্তাহ ধরে, জনপ্রিয় সমস্ত মুদ্রাগুলিই তাদের দৃষ্টান্তমূলক স্তরগুলিতে পৌঁছায়: EUR/USD(1.1000), GBP/USD (1.3000) এবং USD/JPY (110), যা এগুলির পরবর্তী গতিবিধি সম্পর্কে পূর্বাভাস দেবার কাজটিকে আরও কঠিন করে তোলে, যেহেতু এই স্তরগুলি দুই হিসেবেই কাজ করে, শক্তিশালী অবলম্বন এবং প্রতিরোধ।
    এই পূর্বাভাসটি লেখার সময় (08ই ফেব্রুয়ারী, শনিবার), EUR/USD জুটির সূচকের পরিস্থিতি ঠিক সেই অবস্থাকে প্রতিফলিত করেছিল যা আমরা এক সপ্তাহ আগে দেখেছিলাম। প্রবণতা সূচকগুলির 100% এবং H1 এবং D1-এর উপরের অসিলেটরগুলির 85%-এর রং এখন লাল। আর অসিলেটরগুলির বাকি 15% এখন এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত বিক্রির সংকেত দিচ্ছে এবং ঘুরে উপরে ওঠাটা এখন প্রত্যাশিত।
    বিশেষজ্ঞদের 60% মনে করে, যাকে H4-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণও সমর্থন করেছে, যে, এই জুটির পতন জারি থাকবে, যার লক্ষ্যমাত্রা হবে গত 2019-এর অক্টোবর-নভেম্বরের নিম্নস্তর 1.0880-র অঞ্চলকে পরখ করে দেখা। আর তাতে সফল হলে, এটি 1.0500-1.0800-এর অঞ্চলের রাস্তা খুলে দেবে, যেখানে এটিকে গত 2015-2017 সময়কালে দেখা গেছিল।
    তবে, গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণে এই জুটির জন্য ঘুরে দাঁড়িয়ে 1.0880-র অবলম্বন অঞ্চলে আসা আরও পরিপ্রেক্ষিত দেখানো হয়েছে: প্রথমে 1.1000-র প্রতিরোধ অঞ্চলে এবং তারপর আরও 100 পয়েন্ট উপরে। বিশ্লেষকদের বৃহদাংশ (60%) এই জুটির মধ্য মেয়াদে আবার 1.1100 এবং 1.1200-এ পৌঁছানোর ব্যাপারে একমত।
    ম্যাক্রোইকোনমিক বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে, আগামি সপ্তাহটা পুরোটাই গুরুত্বপূর্ণ সব ঘটনায় পরিপূর্ণ থাকবে। সেগুলির মধ্যে রয়েছে মার্কিন কংগ্রেসে ফেডেরাল রিজার্ভের কর্ণধার জেরোম পাওয়েলের ভাষণ, 13 ও 14 তারিখে যথাক্রমে জার্মানি ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উপভোক্তা বাজারের পরিসংখ্যানগুলির প্রকাশ, এবং সপ্তাহের শেষে, 14ই ফেব্রুয়ারী তারিখে, জার্মানি ও ইউরোজোনের GDP ডেটা প্রকাশ;
  • GBP/USD মঙ্গলবার, 11ই ফেব্রুয়ারী, UK-এর 2019-এর চতুর্থ ত্রৈমাসিকের GDP ডেটা হাতে এসে যাবে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে যে, বৃদ্ধি শূন্য থাকবে, যা পাউন্ডের উপর অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি করতে পারে। এটি স্মরণ রাখতে হবে যে, Brexit নিয়ে পরিস্থিতি এবং ব্যাংক অব ইংল্যান্ড-এর আর্থিক নীতি ব্রিটিশ মুদ্রার উন্নতির সম্ভাবনাকে ঝাপসা করে তুলেছে। অন্তত বর্তমানে বিশেষজ্ঞদের মতামতগুলি প্রায় সমান তিনটি ভাগে বিভক্ত হয়ে রয়েছে: 30% রয়েছেন বৃদ্ধির পক্ষে, 30% রয়েছেন পতনের পক্ষে এবং 40% রয়েছেন এই জুটির পার্শ্ববর্তী গতিবিধির পক্ষে। মধ্য-মেয়াদে, বিশ্লেষকদের বেশিরভাগ অংশ (65%) এখনও ব্রিটেন এবং EU-এর মধ্যে বাণিজ্যিক সমঝোতায় উন্নতির ব্যাপারে আশাবাদী।
    প্রযুক্তিগত বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে, বর্তমান পরিস্থিতি EUR/USD-র পরিস্থিতির পুনরাবৃত্তি করবে: সূচকগুলির রং লাল, এবং অসিলেটরগুলির মধ্যে মাত্র 15% মাত্রাতিরিক্ত বিক্রির অঞ্চলে রয়েছে। 
    এই জুটি সপ্তাহটি 1-এর স্তরে শেষ করে। 2880 - পিভোট জোন, যা বরাবর এটি 2019-এর অক্টোবরের শেষ থেকে ডিসেম্বরের শুরু অবধি ঘুরপাক খেয়েছিল। অতএব, এর ওঠা-পড়ার নিকটবর্তী প্রান্তসীমাগুলি গত বছরের অলিন্দের প্রান্তসীমাগুলিতেই রয়েছে -1.2800 এবং 1.3000। তবে, গত পাঁচদিন ধরে পাউন্ডের 320 পয়েন্ট পতন এই ইঙ্গিত দিচ্ছে যে, এটি নির্দিষ্ট করে দেওয়া চ্যানেলে না-ও থাকতে পারে। বিয়ার-এর জন্য পরবর্তী লক্ষ্যমাত্রা হল 1.2400-1.2580 জোন। এই প্রবণতা দেখা গেলে আমরা এই জুটিকে 1.2975-1.3200 জোনে 1.3100-র পিভোট পয়েন্ট-সহ দেখতে পাব। এই জুটির বর্ধিত অস্থিরতার কারণে, এর থেকে সঠিক মাপকাঠি দেওয়া সম্ভব নয় (মনে করে দেখুন যে, 2019-এর ডিসেম্বর মাসে মাত্র 10 দিনে এটি 600 পয়েন্টের বেশি উচ্চতায় "উড়ে” গেছিল!);
  • USD/JPY নিজেদের শক্তির উৎসের অভাব থাকার কারণে জাপান একটি সর্বাধিক শক্তি-নির্ভরশীল দেশ, বিশেষকরে এখন, যখন তাদের একাধিক পরমাণু চুল্লিগুলি বন্ধ করে দেওয়ায়, জাপানের জন্য প্রেট্রোলিয়াম পণ্যগুলি কেনার খুবই দরকার হয়ে পড়েছিল। অতএব, এই শক্তি-বাহী পণ্যগুলির দামে উচ্চমাত্রায় বৃদ্ধি সবসময়েই জাপানি মুদ্রাকে দুর্বল করে দেবার কারণ হয়।
    গত এক সপ্তাহ ধরে, তেলের উৎপাদন কমানোর ব্যাপারে OPEC ও সেই সঙ্গে কমিটির সিদ্ধান্তের ব্যাপারে তৈরি হওয়া অনুমানের কারণে বাজারে ভীষণভাবে অস্থিরতা ছিল। ফলস্বরূপ, তৈল উৎপাদনের পরিমাণ 600,000 ব্যারেল প্রতি দিন হিসেবে কমিয়ে দেবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, যা এই "কালো সোনা"-র দামের পতনকে থামানো উচিৎ। চীনের বাণিজ্যিক নীতিতে সরলীকরণও তেলের বাজারকে অবলম্বন জোগানো উচিৎ, বিশেষকরে, মার্কিন পণ্যগুলি থেকে $75 বিলিয়ন মূল্যের শুল্ক কমানোর ব্যাপারে চীনের সিদ্ধান্ত। খুব সম্ভবত, এই সবকিছুই USD/JPY জুটির বৃদ্ধি এবং গত সপ্তাহে জাপানি মুদ্রার 110 পয়েন্ট পতনকে প্রভাবিত করেছিল। বিশেষজ্ঞদের 60% প্রত্যাশা করছেন এই জুটির বৃদ্ধি জারি থাকবে, যাকে শুধুমাত্র তেলের বিষয়গুলিই প্রভাবিত করবে না, বরং করোনা ভাইরাস নিয়ে তৈরি হওয়া পরিস্থিতির উন্নতিও প্রভাবিত করবে।
    তবে, আমাদের এই কথা ভোলা উচিৎ নয় যে, 06ই জানুয়ারী থেকে ব্রেন্ট অয়েল-এর ফিউচারগুলি প্রায় 21% পড়েছে – $68.91 থেকে $54.45-এ, যে কারণেই বিশেষজ্ঞদের বাকি 40% জাপানি মুদ্রার পক্ষেই থেকে গেছেন।
    এখানে প্রযুক্তিগত বিশ্লেষণের পরিস্থিতি এই রকম। H4-এর সময়সীমায়, অসিলেটরগুলির 80% এবং প্রবণতা সূচকগুলির 75% উত্থানের পক্ষে, অন্যদিকে, D1-এর অসিলেটরগুলির 85% এবং প্রবণতা সূচকগুলির 90%-এর রং সবুজ। তাই, বুল ভাবাবেগের একটি স্পষ্ট ইঙ্গিত রয়েছে।
    H4-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ এই জুটির 109.10-109.30-র অঞ্চলে পতনের ইঙ্গিত দিচ্ছে, পরবর্তী অবলম্বনগুলি হল 108.30 এবং 107.65। D1-এ, এই ছবিটা ঠিক বিপরীত: প্রথমে, 110.80-111.30-র স্তর অবধি বৃদ্ধি, এবং তারপর 111.70 উচ্চতা অবধি। নিকটতম প্রতিরোধ হল 1.2575।
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি তাহলে, বিটকয়েনের দাম 3 মাসের উচ্চতায় উন্নীত হয়েছে। "প্রবণতা পাল্টে যাবার ব্যাপারে সতর্ক হোন!"- বিশেষজ্ঞদের 20% সতর্ক করছেন। করোনা ভাইরাস মহামারির প্রেক্ষাপটে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যেকার সম্পর্ক স্থিতিশীল হতে পারে, যার ফলে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে সরকারি মুদ্রাগুলির ব্যাপারে আগ্রহ বাড়তে পারে। সেক্ষেত্রে, বিটকয়েন অনেকটাই সংকুচিত হতে পারে। এমনকি করোনা ভাইরাস ছাড়াও, এই দুই বাণিজ্যিক মহিরূহই এক পা এক পা করে তাদের বাণিজ্য-যুদ্ধ অবসানের দিকেই এগোচ্ছে। কিন্তু বিটকয়েনের দামকে তা কতটা প্রভাবিত করবে?
    বিশ্লেষকদের 80% মনে করেন যে, সুনির্দিষ্টভাবে নিচের দিকে টান বা ড্রডাউন ($9,100-এর নিচে) প্রত্যাশা করা উচিৎ নয়, এবং এই জুটি শীঘ্রই $10,450-এর অঙ্কে উঠে আসবে। আর $12,300-র অঙ্কটা খুব কাছাকাছিই আছে। থমাস লি, ফান্ডস্ট্র্যাট গ্লোবাল অ্যাডভাইজার-র সহ-প্রতিষ্ঠাতা, এমনকি আরও বেশি বৃদ্ধির পূর্বাভাস দিচ্ছেন। তার মতে, আগামি ছয় মাসে বিটকয়েনের গড় বৃদ্ধি 200%-এ পৌঁছাবে।
    কিন্তু, যেমনটা প্রায়শই ঘটে থাকে, যখন সকলেই প্রত্যাশা করে দাম বাড়বে, তখন দাম কমে। অতএব, আমরা আপনাকে সেই 20% বিশেষজ্ঞদের কথা না ভোলার জন্য প্রবলভাবে পরামর্শ দেব, যারা চরম সতর্কতা দিয়ে রেখেছেন।

 

রোমান বুটকো, NordFX

 

দ্রষ্টব্য: এই বিষয়বস্তুটিকে বিনিয়োগের সুপারিশ অথবা আর্থিক বাজারগুলিতে কাজ করার দিকনির্দেশ হিসেবে বিবেচনা করা উচিৎ হবে না: এগুলির উদ্দেশ্য শুধুমাত্র তথ্য সরবরাহ করা  আর্থিক বাজারগুলিতে কেনা-বেচা করা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ এবং তা লগ্নীকৃত অর্থ পুরোপুরি হারানোর কারণ হতে পারে


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)