ফেব্রুয়ারী 1, 2020

প্রথমে, গত সপ্তাহের ঘটনাগুলোর একটা পর্যালোচনা:

  • EUR/USD। গত সপ্তাহটা কোরোনা ভাইরাসের লক্ষণের মধ্যে দিয়ে কেটেছে, যা গত সপ্তাহে বাজারে যা যা ঘটেছিল তার বেশিরভাগকে নির্ধারিত করেছিল। যে সব ভোগ্যপণ্য ও মুদ্রাগুলির সরাসরি চীনের সঙ্গে যুক্ত ছিল সেগুলির সবচেয়ে বেশি খারাপ অবস্থা হয়েছে।
    যেমনটা আপনারা জানেন, ইউরোজোন অর্থনীতি খুব নিবিড়ভাবে চীনের সঙ্গে যোগ রয়েছে, এবং সেটা সপ্তাহের প্রথমার্ধে ডলারের হাতেই খেলেছে। বেশিরভাগ (55%) বিশেষজ্ঞের প্রত্যাশা যেমন ছিল, যাকে শুধুমাত্র H4 এবং D1-এরই নয় বরং W1-এর উপরের অসিলেটরগুলির 85% ও প্রবণতা সূচকগুলির 100% সমর্থনও করেছিল, EUR/USD জুটির পতন হয়েছে এবং গত বুধবার, 29শে জানুয়ারী তা 1.1000-র অবলম্বন অঞ্চলে পৌঁছে যায়।
    স্থানীয় নিম্ন স্তর 1.0992-এ পৌঁছানোর পর, এই জুটি ঘুরে দাঁড়ায় এবং উত্তর দিকে ফিরে যায়।
    এই গতিবিধি WHO (বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা)-র বিবৃতিকে বন্ধ করতে পারত, কিন্তু এর কর্তাব্যক্তিরা বাজারে ভীতির সঞ্চার যাতে না হয় এবং ফলস্বরূপ অর্থনৈতিক গতিবিধির উপর বিরূপ প্রভাব না পড়ে তার জন্য সম্ভাব্য সবকিছুই করেছিলেন। অন্যদিকে, WHO-এর তরফে কোরোনা ভাইরাসকে মহামারী হিসেবে ঘোষণা করা হয়, একটি আন্তর্জাতিক গুরুত্বের সাথে, কিন্তু অপরদিকে, তারা আবার লোকেদের স্বাভাবিক আচরণ করার পরামর্শও দেন।
    ফলত, ইউরোপীয় মুদ্রার উত্থান জারি থাকে, এমনকি ইউরোজোন থেকে আসা মাইক্রোইকোনমিক ডেটা দুর্বল আসা সত্ত্বেও। এই জুটিকে শুধুমাত্র US-এর GDP ডেটাই সমর্থন করেনি, বরং ব্যাংক অব ইংল্যান্ড-এর সুদের হার সংক্রান্ত সিদ্ধান্তও (এ ব্যাপারে পরে আরও বলব) তা করে। গোটা 2019 সাল জুড়ে, ডলারের সাপেক্ষে উত্থানের ক্ষেত্রে পাউন্ড এবং ইউরো একে-অপরকে সাহায্য করে এসেছে, তাই ব্রিটিশ মুদ্রা তার ইউরোপীয় “সমকক্ষ”-কে ঠেলে তুলতই। সপ্তাহান্তের শুরুতে সংক্ষিপ্ত পজিশনগুলোর বিলুপ্তিও গত শুক্রবার EUR/USD জুটির উত্থানে তার অবদান রাখে। ফলত, সপ্তাহের ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডের শেষের দিকে, এই জুটি মধ্য-মেয়াদি পিভোট পয়েন্ট জোনে ফিরে আসে, যে জায়গায় এটি 2019-এর জুলাই মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে ওঠা-নামা করে আসছিল- 1.1085-1.1100-এ, সাম্প্রতিক মাসগুলিতে এই দুটি মুদ্রার ভারসাম্যের ব্যাপারে করা পূর্বানুমানগুলিকে নিশ্চিয়তা দিয়ে।
  • GBP/USD 30শে জানুয়ারীর ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের সভার কার্যবিবরণী (মিনিটস): ব্যাংক অব ইংল্যান্ড দ্বারা ক্রয় করা সম্পদের পরিমাণ: অপরিবর্তিত (£435B), সুদের হার: অপরিবর্তিত (0.75%), সুদের হার অপরিবর্তিত রাখার পক্ষে প্রদত্ত ভোটের সংখ্যা: অপরিবর্তিত (7), সুদের হার কমানের পক্ষে প্রদত্ত ভোটের সংখ্যা: অপরিবর্তিত (2)। অর্থাৎ, সবকিছুই ঠিক তেমনই রয়ে গেছে যেমনটি এক মাসে আগেও ছিল। আর এই "অপরিবর্তিত"-ই হঠাৎ করে ডলারের সাপেক্ষে এবং অন্যান্য আরও কয়েকটি মুদ্রার সাপেক্ষেও, ব্রিটিশ পাউন্ডকে ঠেলে তুলে দেয়, যার মধ্যে ইউরো-ও রয়েছে। কেন?
    31শে জানুয়ারী হল ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে UK-এর বেরিয়ে আসার সরকারিভাবে ঘোষিত তারিখ, তবে, 2020-র শেষের দিকে গিয়ে, পরিবর্তন-কালের চুক্তি মোতাবেক, এই ক্ষেত্রে কোন গুরুতর ঘটনা ঘটবে না, এই দেশ EU-এর সঙ্গে আরেক দফা দীর্ঘ সম্পর্কের অপেক্ষায় রয়েছে। কোরোনা ভাইরাস বাজারকে নাড়িয়ে দিয়ে থাকতে পারে। এর প্রাদুর্ভাবের কারণে, ব্যাংক অব ইংল্যান্ড-এর সুদের হার কামানোর সম্ভাবনা মাথা চাড়া দিয়েছিল। যদিও তা হয়নি। আর্থিক নীতি বিষয়ক কমিটির বিবেচনায়, ডিসেম্বরে UK-তে সংসদীয় নির্বাচন পরবর্তী সময়ে যে অর্থনৈতিক উন্নতি ঘটেছে তা ভবিষ্যতেও জারি থাকবে এবং তাই তারা সুদের হার অপরিবর্তিত রেখে দেবার সিদ্ধান্ত নেয়।
    যা ঘটল তা আমাদের পূর্বাভাসকে পুরোপুরি মান্যতা দেয়, যার পক্ষে গত সপ্তাহে বিশেষজ্ঞদের প্রধান অংশই (65%) মত দিয়েছিলেন। তাদের মতে, GBP/USD জুটি প্রথমে 1.3160-র প্রতিরোধ ভাঙ্গবে এবং তারপর 1.3200-র দিকে এগিয়ে যাবে। আদপে তা-ই ঘটেছিল: ব্রিটিশ মুদ্রা তার অন্তিম রেখা 1.3202-তে নির্দিষ্ট করেছিল;
  • USD/JPY বহু বিনিয়োগকারী মনে করেছিলেন ইয়েনের মতো একটি নিরাপদ মুদ্রা তাদেরকে কোরোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের দরুণ হওয়া বিপদ থেকে রক্ষা করবে। এই আত্মবিশ্বাস এবং বিপদসঙ্কুল সম্পদগুলি থেকে রক্ষণশীল সম্পদগুলিতে প্রত্যাবর্তনের মতো বিষয়গুলি গত সপ্তাহে জাপানি মুদ্রাকে আরও বেশি শক্তিশালী করে তোলে। 40% বিশেষজ্ঞ 108.40-এর স্তরটিকে USD/JPY জুটির জন্য একটি অবলম্বনের স্তর হিসেবে নামাঙ্কিত করে, এটি সেই অঞ্চল যেখানে এই জুটি তাদের কর্ম-সপ্তাহটিকে 108.36-এ শেষ করে;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি এটা মনে রাখতে হবে যে, গত সপ্তাহে মাত্র 20% বিশেষজ্ঞ এটা সমর্থন করেছিল যে, জানুয়ারীর শেষের দিকে বিটকয়েন $9,000-এর উপরের কোন হরাইজনে শক্ত জমি পেতে সমর্থ হবে। একটা বড় অংশ (70%) 2-3 সপ্তাহ পরে সেটা ঘটার আশা করেছিল। তবে, কোরোনা ভাইরাস তার কাজ করে চলে গেছে।
    - মার্কিন শেয়ারগুলি বড়মাপের বিক্রি দিয়ে সপ্তাহটা শুরু করে। প্রধান সূচকগুলির সবকটিই কোরোনা ভাইরাসের ছড়িয়ে পড়ার উদ্বেগের কারণে একটি ঋণাত্মক অঞ্চলে চলে গেছিল। ডাউ জোন্স-এর শিল্পের শেয়ারগুলির গড় 400 পয়েন্ট পড়ে যায়, ন্যাসড্যাক-এর সমবেত (কম্পোজিট) সূচক 1.8% পড়ে যায় এবং S&P 500 1.4% পড়ে যায়। একই সময়ে, বিটকয়েন ওঠে, বৃহস্পতি ও শুক্রবার রাতে তা $9.550 USD-তে পৌঁছে যায়। "প্রতিবার যখন ভয় ও আশঙ্কা থেকে নিয়ন্ত্রিত বাজারগুলির পতন ঘটে, তখন বিটকয়েনের উত্থান হয়। আর এই বিষয়টিই এই প্রধান ক্রিপ্টোকারেন্সিকে একটি নিরাপদ আশ্রয়স্থল হিসেবে দেখার যুক্তিকে সমর্থন করে।," যা ঘটছে তাকে BlockTV-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে এইভাবেই ব্যাখ্যা করেন বিশিষ্ট বিশ্লেষক নাথানিল হুইটমোর।
    শীর্ষস্থানীয় ক্রিপ্টোকারেন্সির এই বৃদ্ধি গোটা ক্রিপ্টোবাজারকে চাঙ্গা করে, যা অন্যান্য শীর্ষস্থানীয় ক্রিপ্টো-মুদ্রাগুলিকে ঠেলে সবুজ অঞ্চলে উপরে তুলে দেয়, যার মধ্যে রয়েছে ইথিরিয়াম (ETH/USD), লিটকয়েন (LTC/USD) এবং রিপল (XRP/USD)। এছাড়াও ক্রিপ্টো-বাজারের মোট মূলধনেও বৃদ্ধি আসে: 25শে জানুয়ারী যা ছিল $235bn, ঠিক পাঁচ দিন পরে তা প্রায় $267bn-এর স্তরে পৌঁছে যায়, যে বৃদ্ধির হার ছিল 13.5%।

 

আগামি সপ্তাহের পূর্বাভাসের ক্ষেত্রে, একাধিক বিশেষজ্ঞদের মতামতগুলোকে, ও সেই সঙ্গে প্রযুক্তিগত ও গ্রাফিক্সভিত্তিক বিশ্লেষণের বহুবিধ পদ্ধতির ভিত্তিতে করা পূর্বাভাসগুলোকে একত্রিত করে, আমরা নিম্নোক্ত কথাগুলো বলতে পারি:

  • EUR/USD কিছু আমেরিকান মনে করেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে যা ঘটছে তা তাদের উপর কোন প্রভাব ফেলে না। কিন্তু আদপে তা একেবারেই নয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি কিন্তু অন্যান্য দেশগুলিতে কী ঘটে চলেছে তার উপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল। আর, সেটা উপলব্ধি করেই, আন্তর্জাতিক চ্যালেঞ্জগুলির প্রতি ফেডেরাল রিজার্ভ কিন্তু খুবই সচেতন থাকে, আর সেই কারণেই একে অনেক সময় সেই "লেজ” বলা হয় যেটা বিশ্বের GDP নামক কুকুর নাড়ে। এই মুহূর্তে, চীন থেকে আসা কোরোনা ভাইরাস হল সেই চ্যালেঞ্জ। যদিও এই মুহূর্তে "লেজ"-এর তরফে কোন প্রত্যক্ষ প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে না।
    কোরোনা ভাইরাসকে এখনও অবধি কোন একটি নির্দিষ্ট স্থান বেঁধে ফেলা সম্ভব হয়নি, তাই ভীত-আশংকিত মনোভাবই আগামি সপ্তাহের প্রবণতা হয়ে উঠে আসতে পারে, যা ঝুঁকিপূর্ণ সম্পদ বিক্রির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। একটি ইতিবাচক খবর, ধরুন, এই সংক্রমণের বিরুদ্ধে একটি টিকা আবিষ্কারের ব্যাপারে কোন খবর, এই প্রবণতাকে নাটকীয়ভাবে "নদীর গতিমুখে বদল” আনতে পারে। এই ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট করে কোন কিছুর ভবিষ্যদ্বাণী করাটা খুবই কঠিন।
    আমরা যদি প্রয়োগিক বিশ্লেষণের কথা বলি, H4-এর উপরের বেশিরভাগ সূচকের রংই সবুজ, যেখানে D1-এর উপরের সূচকগুলিতে আবার নিরপেক্ষ ধূসর রংয়ের প্রাধান্য। কিন্তু দুটি সময়কালেই, অসিলেটরগুলির প্রায় 15% এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত ক্রয়ের সংকেত দিচ্ছে, যা একটি বার্তাবাহী দূতের মতো কাজ করছে, তা যদি প্রবণতায় বদলের কথা না-ও বলে, তাহলে অন্তত দক্ষিণ অভিমুখী কিছু সংশোধনের কথা তো বলেই। H4-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ এই অগ্রগতির পক্ষে রায় দেয়, এর একটি অত্যন্ত মজবুদ অবলম্বন 1.0990-1.1000-এ ফিরে যাবার পূর্বাভাস দিয়ে।
    এই মুহূর্তে বিশেষজ্ঞদের, ও সেই সঙ্গে D1-এর উপরের সূচকগুলিরও, মতকে নিরপেক্ষ-ধূসর বলা যেতে পারে। তবে, সাপ্তহিক থেকে যেই মাসিক পূর্বাভাসের দিকে যাব, এটা বেশি বেশি করে সবুজ হতে শুরু করবে, 70%-এর উচ্চতায় উঠে গিয়ে। ওই সংখ্যাটা হল সেই সব বিশ্লেষকদের যারা মনে করেন, 1.1100-1.1115-র জোনের প্রতিরোধকে ভাঙ্গার পর এই জুটি ফেব্রুয়ারী মাস জুড়ে 1.1145-এর উচ্চতায় ঝড় তুলে চলবে, আর তারপর, 1.1170-এ, 1.1200-এ এবং 31শে ডিসেম্বর, 2019-এর 1.1240 উচ্চতায় পৌঁছে যাবে।
    মাইক্রোইকোনমিক্স পরিসংখ্যানগুলির ক্ষেত্রে, আগামি সপ্তাহে আমরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উৎপাদন ও পরিষেবা ক্ষেত্রগুলির ISM ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডের সূচকগুলি জানতে পারব, সেই সঙ্গে প্রথা অনুযায়ী মাসের প্রথম শুক্রবার আমরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শ্রম-বাজারের ডেটা (NFP-সহ) জানতে পারব।
    যদিও, 03রা ফেব্রুয়ারী, সোমবারের মধ্যেই বাজার একটি চমক আশা করতে পারে, যখন জানুয়ারী মাসের কেইক্সিনের পার্চেজিং ম্যানেজার্স অ্যাক্টিভিটি ইন্ডেক্স (PMI) প্রকাশিত হবে, যা চীনের উৎপাদন শিল্পের একটি প্রথমসারির সূচক। এর মান চীনের অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে কোরোনা ভাইরাস কতটা প্রভাব ফেলেছে তার খুব স্পষ্ট সংকেত বাজারকে দিতে পারে।
    সোমবারের চমক ওখানেই শেষ না-ও হতে পারে – 03রা ফেব্রুয়ারী তারিখে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি পদে প্রকৃত "খোঁজের” মরশুম শুরু হবে। এই দিনটি আইওয়াতে প্রথম গণতান্ত্রিক পদপ্রার্থী ঘোষণার দিন। আর বার্নি স্যান্ডার্স যদি মজবুত ফল করে, তাহলে সমপরিমাণ মজবুত বাজার-প্রতিক্রিয়াও আশা করা যেতে পারে;

  • GBP/USD গত সপ্তাহের শেষে 230 পয়েন্টের ওইরকম একটা লাফের পর H4 এবং D1 উভয়ের উপরেরই প্রধান সূচকগুলির একটি বড় অংশের রং সবুজ হয়ে গেছে। তবে, আগের জুটির মতোই, অসিলেটরগুলির প্রায় 15% ইতিমধ্যেই মাত্রাতিরিক্ত ক্রয়ের জোনে চলে গেছে। এগুলির পরে, D1-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ প্রথমে ব্রিটিশ মুদ্রার 1.2970-এর হরাইজনে পতনের, এবং তারপর 1.2800-এর স্তরে পৌঁছানোর ইঙ্গিত দিচ্ছে। নিকটবর্তী শক্তিশালী অবলম্বন হল 1.3100।
    এটি লক্ষ্য রাখতে হবে যে, দেড় মাস আগে 1.2900-1.3285-এর পরিসরে ওঠা-নামা দিয়ে শুরু করে এই জুটি ধীরে ধীরে তার অস্থিরতা কমিয়ে 1.2975-1.3200-এ চলে আসে। বেশিরভাগ বিশ্লেষক (55%) মনে করেন যে, অদূর ভবিষ্যতে এই জুটি এই অলিন্দের মধ্যেই থেকে যেতে সমর্থ হবে। তবে, তারা খুব কম সংখ্যক (45%) নন যারা মনে করেন যে, পাউন্ড তার ইতিবাচক গতি বজায় রেখে যেতে পারবে, 1.3285-1.3300 হরাইজনে তার প্রতিরোধ ভেঙ্গে বেরোবে এবং গত ডিসেম্বরে থাকা 1.3500-এর উচ্চতায় আবার উঠতে পারবে;
  • USD/JPY এই জুটির আশু দরগুলি সরাসরিভাবে ভাইরাসবিদদের সাফল্যের উপর নির্ভর করছে। তারা যদি পরবর্তী কয়েকদিনের মধ্যে কোরোনা ভাইরাসকে বশে আনতে পারেন, তাহলে ডলারের জয় হবে। আর যদি এই মহামারি নতুন নতুন অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে, এবং এতে আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি পেতে থাকে, তাহলে জাপানি মুদ্রা সুবিধাজনক অবস্থানে থাকবে- একেবারে আকাশে।
    অর্থনীতির বিশেষজ্ঞদের কাছে যেহেতু ল্যাবরেটরিগুলিতে কী হচ্ছে তার সাম্প্রতিকতম ডেটা নেই, তাই তাদের মতামতগুলি এখন 50-50 অবস্থায় রয়েছে। প্রয়োগিক বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে, প্রবণতা সূচকগুলির 100% এবং H1 ও D1-এর উপরের অসিলেটরগুলির 80% এই জুটির পতনের পূর্বাভাস দিচ্ছে। H1-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ এদের সঙ্গে সহমত পোষণ করে। অবলম্বনের স্তরগুলি হল 107.70, 107.00 এবং 106.60। D1-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ এবং অসিলেটরগুলির 20% এর বিপরীত মত পোষণ করে, যারা এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত বিক্রির সংকেত দেয়। প্রতিরোধের স্তরগুলি হল 109.25, 109.70 এবং লক্ষ্য হল, 110.25।
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি 2020-র প্রথম মাসে BTC/USD জুটি 30% বা $2,200 বৃদ্ধি দেখিয়েছে। বিটকয়েন ক্রিপ্টো ফিয়ার অ্যান্ড গ্রিড ইন্ডেক্স ধ্রুবরেখা অতিক্রম করে গেছে এবং বর্তমানে তা সম্ভাব্য 100-র মধ্যে 55 নম্বর স্তরে রয়েছে। এছাড়াও বিশ্লেষকদের আশা-প্রবণতাও লক্ষ্য করা গেছে। আগে যদি তারা প্রধান এই মুদ্রার প্রত্যাশিত পতনের ব্যাপারে মনে করে ইতিবাচক পূর্বাভাস দিতে ভয় পেয়ে থেকে থাকেন, তাহলে এখন তাদের মধ্যে 60%-ই নির্দ্বিধায় $10,000-এর দিকে নির্দেশ করছেন। আর ঠিক এই জায়গাতেই বিনিয়োগকারীদের বিশেষভাবে সতর্ক থাকতে হবে: এটা সেই সর্ববৃহৎ প্রত্যাশার সময় যখন বিশাল বিশাল ফাটকা কারবারিরা পতনমুখী দিকে সক্রিয় খেলা শুরু করতে পারে। আর উদাহরণের জন্য আপনাদের খুব বেশি দূরে যেতে হবে না - গত বছর কী ঘটেছিল সেটাই দেখুন।

 

রোমান বুটকো, NordFX

 

দ্রষ্টব্য: এই বিষয়বস্তুটিকে বিনিয়োগের সুপারিশ অথবা আর্থিক বাজারগুলিতে কাজ করার দিকনির্দেশ হিসেবে বিবেচনা করা উচিৎ হবে না: এগুলির উদ্দেশ্য শুধুমাত্র তথ্য সরবরাহ করা  আর্থিক বাজারগুলিতে কেনা-বেচা করা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ এবং তা লগ্নীকৃত অর্থ পুরোপুরি হারানোর কারণ হতে পারে


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)