নভেম্বর 9, 2019

প্রথমে, গত সপ্তাহের ঘটনাগুলোর একটা পর্যালোচনা:

  • EUR/USD। 07ই নভেম্বর, বৃহস্পতিবার, মার্কিন বাজারে ঐতিহাসিক উত্থান দেখা গেছে যখন বাণিজ্যিক চুক্তির নতুন অংশ হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের তরফে শুল্ক কমানোর ইচ্ছা ব্যক্ত করার প্রতিবেদন সামনে আসে। ফাটকা কারবারিরা বন্ড, ইয়েন এবং সোনার মতো নিরাপদ আশ্রয়স্থলগুলি থেকে তাদের মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। ইউরোপের মুদ্রার ডলারের থেকে সস্তা হয়েছে: বিনিয়োগকারীরা আশা করছে মার্কিন-চীন বাণিজ্য-যুদ্ধ শেষ হলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাক্রোইকোনমির সূচকে উন্নতি হবে। আর যদিও একটা পূর্ণাঙ্গ চুক্তি স্বাক্ষর হওয়ায় এখনও অনেক দেরি আছে, তবুও বিশেষজ্ঞদের মতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের আগে ডোনাল্ড ট্রাম্প আর কোন আকস্মিক পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন না।
    গত সপ্তাহে বিশেষজ্ঞদের 40% ইউরোর পতনের পক্ষে ছিলেন, যাকে গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ সমর্থন করেছিল। অসিলেটরগুলির 10% ইউরোপীয় মুদ্রার মাত্রাতিরিক্ত ক্রয়ের ইঙ্গিত দিয়েছিল, যা প্রবণতা পরিবর্তনের জন্য একটা শক্তিশালী সংকেত ছিল। পার্শ্ববর্তী চ্যানেল 1.1075-1.1175-এর নিচের সীমাকে ভাঙ্গায়, নিম্নগতি (বিয়ারিশ) পরিস্থিতি এই জুটিকে 1.1000 জোনে অবলম্বন দেবার জন্য নামিয়ে আনে। বাস্ততে এটাই ঘটেছিল: এই সপ্তাহের শেষের দিকে, এই জুটি 1.1016-এ ছিল, এবং অন্তিম সুতোটা 1.1020-এ নির্দিষ্ট হয়েছিল;
  • GBP/USD। যেমনটি প্রত্যাশিত ছিল, ব্যাংক অব ইংল্যান্ড তাদের সুদের হার -0.75%-এই অপরিবর্তিত রেখে দিল। কিন্তু বিশ্লেষকেরা যেটা প্রত্যাশা করেননি তা হল, আর্থিক নীতি বিষয়ক নয় সদস্যের কমিটির দু’জন 0.50% রেট কমানোর পক্ষে মত দেবেন। এই দুটো ভোটই পাউন্ডের 70 পয়েন্টের বেশি পতনের জন্য যথেষ্ট ছিল।
    সাধারণভাবে, যেমনটি প্রত্যাশা করা হয়েছিল, ইউরোর পরিপ্রেক্ষিতে পাউন্ড তাকে অনুসরণ করে। আর EUR/USD জুটি যদি পাঁচ দিনে 150 পয়েন্ট পড়ে থাকে, ব্রিটিশ মুদ্রা 170 পয়েন্ট পড়ে এবং সপ্তাহটা 1.2780-এ এসে শেষ করে;
  • USD/JPY। উপরে যেমনটি উল্লেখ করা হয়েছে, Us-চীন আলোচনায় নিরাপদ মুদ্রা হিসেবে ইয়েনের আকর্ষণের উপর প্রভাব ফেলে। ফলস্বরূপ, ডলারের সাপেক্ষে জাপানি মুদ্রার পতন 07ই নভেম্বর, বৃহস্পতিবার ছিল সর্বোচ্চ, 130 পয়েন্ট। এই জুটি পাঁচ-দিনের সময়কাল শেষ করে 109.22-এর স্তরে;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। খবরের প্রেক্ষাপটের ক্ষেত্রে, যা ডিজিটাল মুদ্রার দরগুলিকে প্রবলভাবে প্রভাবিত করছে, গত সপ্তাহে খুব ভাল কিছু ছিল না। অতএব, বিটকয়েন শুক্রবার অবধি নিঃশব্দে কনসলিডেশন লাইন বরাবর $9,100-9,500-র অলিন্দ চলাফেলা করেছে। তবে, 08ই নভেম্বর বিনিয়োগকারী ও দীর্ঘ অবস্থান (লং পজিশন) খুলে বসা কারবারিদের জন্য হতাশা নিয়ে আসে। সংশ্লিষ্ট ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলির খাঁড়া পতন ঘটে এবং কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সেগুলি তাদের 6% মূল্য হারিয়ে, $8,680-র স্থানীয় নিম্ম স্তরকে ধরে।
    এই ধরনের পতনের কারণ কী তা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলাটা খুবই কঠিন। প্রযুক্তিগত বিশ্লেষণ অনুরাগীরা 4-ঘণ্টার BTC/USD চার্টের উপর সংকীর্ণ হয়ে আসা ত্রিভূজের উল্লেখ করেছেন। কারণটা ক্রিপ্টোকারেন্সি বিনিময় বাজার (এক্সচেঞ্জ) হ্যাক হয়ে যাবার খবরের হতে পারে, যা চলতি বছরে সপ্তমবার হল। এইবার, হ্যাকাররা ভিয়েতনামের এক্সচেঞ্জ VinDAX থেকে 23টি ডিজিটাল অ্যাসেট থেকে টাকা তুলে নেয় যার মোট পরিমাণ প্রায় $500 হাজার।
    ডিজিটাল অ্যাসেট নিয়ে কথা বলছি। গত সপ্তাহটা বেশ মজার ছিল কারণ, শীর্ষস্থানীয় একাধিক অল্টকয়েন প্রধান ক্রিপ্টোকারেন্সির গতিপথ অনুসরণ করেনি, বরং স্বতন্ত্র গতি প্রদর্শন করে। বিটকয়েনের বিপরীতে, যা দক্ষিণ দিকে চলে গেছিল, ইথিরিয়াম (ETH/USD) সাত দিনের মেয়াদ একই জায়গায় কাটাল যেখান থেকে শুরু করেছিল, এবং লিটকয়েন (LTC/USD) 5% উন্নতি করে।
    রিপল আলাদা ছিল। এটি খেয়াল রাখতে হবে যে, রিপল-এর ম্যানেজমেন্টের তরফে প্রচেষ্টা সত্ত্বেও, এর উপর ঘনিয়ে আসা মেঘ ক্রমশ আরও ঘনীভূত হচ্ছে। 2018-2019-এ এটা 90% "সংকুচিত” হয়। গত সপ্তাহও তার ব্যতিক্রম ছিল না। XRP/USD জুটির গোটা সপ্তাহের ওঠা-নামার হার ছিল প্রায় 14%, এবং গত 07ই নভেম্বর, শুক্রবার এটি 0.2710-এর স্তরে পড়ে যায়।

 

আগামি সপ্তাহের পূর্বাভাসের ক্ষেত্রে, একাধিক বিশ্লেষকদের মতামতগুলোকে, ও সেই সঙ্গে প্রযুক্তিগত ও গ্রাফিক্সভিত্তিক বিশ্লেষণের বহুবিধ পদ্ধতির ভিত্তিতে করা পূর্বাভাসগুলোকে একত্রিত করে, আমরা নিম্নোক্ত কথাগুলো বলতে পারি:

  • EUR/USD। আগামি সপ্তাহে, আমরা বেশ কিছু অর্থনৈতিক ঘটনা ঘটার প্রত্যাশা করছি। যেগুলির মধ্যে, সপ্তাহের মাঝামাঝি US কংগ্রেসে ফেডেরাল রিজার্ভের প্রধান জেরোম পাওয়েলের ভাষণ হল অন্যতম। তাছাড়া, আগামি 13ই নভেম্বর, বুধবার প্রকাশিত হতে যাওয়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রাস্ফীতি সংক্রান্ত তথ্য, 14ই নভেম্বর, বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হতে যাওয়া ইউরোজোন GDP-র মূল্যায়ন, এবং 15ই নভেম্বর, শুক্রবার, প্রকাশিত হতে যাওয়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের খুচরো বিক্রির ডেটা ইত্যাদিগুলি স্থানীয় প্রবণতাগুলিকে প্রভাবিত করতে পারে।
    মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রাস্ফীতির হারকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দেখা উচিৎ, কারণ অক্টোবরের মুদ্রাস্ফীতি যদি পূর্বাভাসের থেকে অনেক কম আসে, তাহলে ফেডেরাল রিজার্ভ হয়ত আগামি মাসে এই বছরের চতুর্থবার সুদের হার কমানোর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে পারে।
    আর, নিশ্চিতভাবেই, বাজার খুব মনোযোগ দিয়ে US-চীন বাণিজ্য-যু্দ্ধের অগ্রগতির খবরগুলিকে শুনবে।  এরকম সম্ভাবনা রয়েছে যে, এই দুই পক্ষের বহিঃশুল্ক (কাস্টমস) খতম করে দেবার সিদ্ধান্তের সঙ্গে যুক্ত প্রত্যাশাগুলি এই সপ্তাহেও জারি থাকার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও বিনিয়োগকারীরা ডিসেম্বরে হতে যাওয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে চীনের রাষ্ট্রপতি জি জিনপিংয়ের বৈঠকেও কিছু ইতিবাচক খবর আশা করছে। এই কারণেই বিশেষজ্ঞদের 65%-ই ডলারের আরও শক্তিশালী হয়ে ওঠার এবং ইউরোর 1.0940-1.0990-র অঞ্চলে পতনের পক্ষে মত দিয়েছে। পরবর্তী লক্ষ্য হল 01লা অক্টোবরের ন্যূনতম 1.0880।
    গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ এবং সূচকগুলি বিশ্লেষকদের ঐক্যের এক বিরল রূপ তুলে ধরেছে: অসিলেটরগুলির 90% এবং সূচকগুলির 100%-এর রং লাল হয়ে গেছে।
    বিশেষজ্ঞদের মাত্র 20% এবং অসিলেটরগুলির মাত্র 10% এই জুটির বৃদ্ধির প্রত্যাশা করেছে, মাত্রাতিরিক্ত বিক্রির সংকেত দিয়ে। নিকটবর্তী প্রতিরোধের অঞ্চল হল 1.1075, তারপর 1.1110 এবং 1.1180।
    আর পরিশেষে, বিশ্লেষদের অবশিষ্ট 15% একটি পার্শ্বাভিমুখী প্রবণতার কথা বলেছে। গত চার সপ্তাহ ধরে, এই জুটি একটি ডবল-হেডেড টপ তৈরি করেছে, এবং বিশেষজ্ঞেরা মনে করছেন এই জুটি কিছু সময়ের জন্য তার মূলে থাকবে, 1.0990-1.1075-র শ্রেণিতে গিয়ে;

  • GBP/USD। Brexit সংক্রান্ত অনিশ্চয়তার কারণে UK-র অর্থনীতি নিরন্তর সমস্যার মধ্যে রয়েছে।  এই বছরের 2য় ত্রৈমাসিকে নির্মাণশিল্পে 1.3% পতন এবং শিল্পগত উৎপাদনেও পতন দেখা গেছে, যার কারণ হল, অন্য কারণগুলির মধ্যে, একাধিক অটোমোবাইল কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়া। এই কারণে, 3য় ত্রৈমাসিকে UK GDP ডেটা, যা আগামি 11ই নভেম্বর, সোমাবার প্রকাশিত হতে চলেছে, ব্রিটিশ মুদ্রার গুরুতর লাফের কারণ হতে পারে। পূর্বাভাস অনুযায়ী, GDP বৃদ্ধির হার গত ত্রৈমাসিকের -0.2%-এর সাপেক্ষে +0.3%-এ পৌঁছে যেতে পারে, যা এই জুটি ঠেলে উপের তুলে দেবে।
    GBP/USD জুটির প্রধান চালিকাশক্তি ডলারই থেকে যাবে। ইউরোর ক্ষেত্রে যেমন, বিশেষজ্ঞদের 65%, D1-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ এবং সূচকগুলির বড় সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশ এর শক্তিশালী হওয়া এবং পাউন্ডের পতনের অপেক্ষায় রয়েছে। অবলম্বনের স্তরগুলি হল 1.2700, 1.2650 এবং 1.2550।
    বাকি 35% বিশ্লেষকদের ক্ষেত্রে, তারা মনে করেন যে, তিন সপ্তাহের পার্শ্ববর্তী চ্যানেল 1.2770-1.3000-এর নিম্নসীমায় পৌঁছানোর পর, এই জুটি ঘুরে দাঁড়াবে এবং উত্তর দিকে যাবে। H4 এবং D1-এর উপর অসিলেটরদের 15%-ও এই পরিস্থিতির সপক্ষে রয়েছে, তাদের ইঙ্গিত হল এই জুটি অতিমাত্রায় বিক্রি হয়েছে;
  • USD/JPY। জাপানের মুদ্রার পরিস্থিতিও ইউরো আর পাউন্ডের মতোই। এটাও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে "শান্তি চুক্তি” স্বাক্ষর হবার পর ম্যাক্রোইকনমির সূচকগুলির উন্নতির চাপের অধীনে রয়েছে।
    14ই নভেম্বর, বৃহস্পতিবার, 3য় ত্রৈমাসিকে জাপানের GDP বৃদ্ধির ডেটা প্রকাশিত হবে। বিশ্লেষককুল ইতিমধ্যেই জাপানের অর্থনীতিতে মন্থরতার পূর্বাভাস দিচ্ছে। অতএব, স্বল্প মেয়াদে জাপানের মুদ্রার দুর্বল হওয়ার কিছু কারণ থাকবে, যার সঙ্গে বিশেষজ্ঞদের 65% একমত। নিকটতম প্রতিরোধের স্তর হল 109.50, তারপর 110.00 এবং 110.70।
    মাত্র 10% বিশ্লেষক ইয়েন শক্তিশালী হবার এবং এই জুটির পতনের পক্ষে মত দিয়েছে, 25%-র বিশ্বাস, এই জুটি পিভোট পয়েন্ট 109.00 বরাবর পার্শ্বাভিমুখী পথে এগোবে;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। বিটকয়েন ক্রিপ্টোকারেন্সি ফিয়ার অ্যান্ড গ্রিড সূচক গড় মান থেকে সরে গেছে এবং সপ্তাহের শেষের দিকে ফিয়ার জোনের কাছে চলে গেছে। চিরায়ত ব্যাখ্য অনুসারে, এই পজিশন লং পজিশন খোলার ব্যাপারে চিন্তার করার একটা কারণ হতে পারে। তবে, সাম্প্রতিককালে বিনিয়োগকারীরা অনেক বেশি সতর্ক হয়ে গেছে এবং তারা দামের তীক্ষ্ণ ওঠার সঙ্গে জড়িত সমবরকম ফাঁদগুলির প্রত্যাশা করে।
    60% বিশেষজ্ঞও নিরাশাবাদীদের দলেই আছে। অতএব, ব্লুমবার্গ বিশ্লেষকদের মতে, বছরটা শেষ হবার আগে, প্রথম ক্রিপ্টোকারেন্সির $8,000 স্তরে পড়ে যাবার একটা সম্ভাবনা আছে। BTC/USD জুটির বৃদ্ধি, যেমনটা আগেই বলা হয়েছে, "জ্বলন"-এর ভয়ে বিক্রির কারণে বিঘ্নিত হবে। তবে, তা সত্ত্বেও, বিশেষজ্ঞদের 40%-এর বিশ্বাস, বিটকয়েন তারপরও 2020-র শুরুটা $10,500-11,000-এর জোনে করতে সক্ষম হবে।
    যারা রোজ কোটেশনের শিডিউল দেখে দেখে নিজেদের চঞ্চল করতে চান না তাদের জন্য এখানে আমেরিকান বিটকয়েন এক্সচেঞ্জের অধিকর্তা বিটলস্ট্যান্ট চার্লি শার্ম-এর তরফে একটা পরামর্শ রয়েছে। তার মতে, "বিটকয়েনে বিনিয়োগের সব চেয়ে ভাল পদ্ধতি হল 5 থেকে 10টা BTC একটা নিষ্ক্রিয় থলেতে (কোল্ড ওয়ালেট) রেখে দেওয়া, এমনভাবে যাতে আপনি নিজেও সেটা 20 বছর অবধি হাত না দিতে পারেন।" "আমার দৃঢ় বিশ্বাস যে," তিনি বলেছেন, "20 বছর পর ওই 5-10টা বিটকয়েন আপনাকে যে টাকা ফেরৎ দেবে তা আপনার জীবনকে সমৃদ্ধিতে বদলে দেবে। বিটকয়েন এমনকি পরমাণু হামলার বিপর্যয়েও টিকে থাকবে, যেখানে ব্যাংক এবং কাগুজে টাকা আক্ষরিক অর্থেই পুড়ে ছাই হয়ে যাবে।”

 

রোমান বুটকো, NordFX

 

দ্রষ্টব্য: এই বিষয়বস্তুটিকে বিনিয়োগের সুপারিশ অথবা আর্থিক বাজারগুলিতে কাজ করার দিকনির্দেশ হিসেবে বিবেচনা করা উচিৎ হবে না: এগুলির উদ্দেশ্য শুধুমাত্র তথ্য সরবরাহ করা  আর্থিক বাজারগুলিতে কেনা-বেচা করা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ এবং তা লগ্নীকৃত অর্থ পুরোপুরি হারানোর কারণ হতে পারে


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)