অক্টোবর 26, 2019

প্রথমে, গত সপ্তাহের ঘটনাগুলোর একটা পর্যালোচনা:

  • EUR/USD। পাউন্ড যেহেতু একমাত্র মুদ্রা নয় যা Brexit ঘটনাবলীর উপর নির্ভরশীল, বরং তার সঙ্গে, শুরুতেই, ইউরো-ও রয়েছে, আমরা আপনাদের বলব UK-র EU থেকে বেরিয়ে যাবার এক সপ্তাহ আগে (অবশ্য যদি শেষ অবধি তা ঘটে) পরিস্থিতিগুলি ঠিক কেমন দেখাবে। আর পরিস্থিতিটা দেখাচ্ছে, ঠিক যেন... একটা দুষ্টচক্র।
    এক দিকে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন EU থেকে বেরিয়ে আসার জন্য তার তৈরি করা খসড়া প্রত্যাহার করতে চাইছেন না যতক্ষণ না পার্লামেন্ট 12ই ডিসেম্বর একটি নির্বাচনের জন্য সম্মতি দিচ্ছে। কিন্তু পার্লামেন্ট সে ব্যাপারে রাজি নয়, কারণ বিরোধীরা চান বরিস জনসন যেন Eu-এর সাথে চুক্তি ছাড়া বেরিয়ে আসার বিকল্পটিকে খারিজ করে দেন, সেই সঙ্গে EU-ও যেন বেরিয়ে আসার শর্তাবলীকে প্রসারিত করতে রাজি হয়।  EU, তাদের তরফে, Brexit-কে কত দীর্ঘায়িত করা হবে তার সিদ্ধান্তে আসার আগে, পার্লামেন্টের 12ই ডিসেম্বর সময়ের আগে নির্বাচনের ব্যাপারে সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করছে।
    সবটা কি পরিষ্কার হল? নাকি না? বাজারের প্রতিক্রিয়া বিবেচনা করে, বর্তমান পরিস্থিতি বোঝাটা খুবই কঠিন, কিন্তু তার থেকেই কঠিন এখন কোন পূর্বাভাস দেওয়া। এই কারণেই আমরা গত সপ্তাহের কোটেশনে কোন উল্লেখযোগ্য লাফ দেখতে পাইনি। ইউরো ডলারের সাপেক্ষে সামান্য দুর্বল হয়েছে, কিন্তু সেই পতন মাত্র 100 পয়েন্টের ছিল, এবং এই জুটি তাদের পাঁচ দিনের সময়কাল 1.1080-এ শেষ করেছিল।
    Brexit নিয়ে অন্তহীন অনিশ্চয়তার সাথে সাথে, ইউরোপে অর্থনীতির মন্থর গতি নিঃসন্দেহে ইউরো-র উপর অতিরিক্ত চাপ তৈরি করেছে। ECB-র প্রচেষ্টা সত্ত্বেও, মুদ্রাস্ফীতি তার অভীষ্ট লক্ষ্যমাত্রা 2%-এ পৌঁছাতে পারেনি। সেপ্টেম্বর মাসে, ইউরোপের নিয়ামক তাদের প্রধান সুদের হার -0.5% কমিয়েছিল এবং কোয়ান্টিটেটিভ ইজিং (QE) সংক্রান্ত তাদের কার্যক্রমকে পুনগ্রহণের তাদের ইচ্ছার ঘোষণা করেছিল। 31শে অক্টোবর, ECB-র বর্তমান প্রধান তার পদ থেকে অবসর নেবেন, এবং এই সম্ভাবনা আছে যে, নতুন প্রধান ক্রিস্টিন ল্যাগর্ডের যোগদানের সাথে সাথে, ইউরোপিয়ান সেন্ট্রাল ব্যাংকের নীতিতে কিছু পরিবর্তন আসবে। কিন্তু এই মুহূর্তে, বিনিয়োগকারীদের দৃষ্টিকোণ থেকে, সুবিধা ডলারের দিকেই রয়েছে, যেহেতু US ফেডেরাল রিজার্ভের রেট ধনাত্মক রয়েছে এবং তা 2%।
  • GBP/USD। তাই, স্পষ্টতা আনার পরিবর্তে, 19শে অক্টোবর UK পার্লামেন্টে Brexit-এর শর্তাবলী নিয়ে হওয়া ভোটাভুটি পরিস্থিতিকে বরং আরও ঘোরালো করে তুলেছে। ফলস্বরূপ, “মহা শনিবার” বাজারের জন্য মহা লাফের দিন নিয়ে আসেনি, বরং তা ব্রিটিশ মুদ্রায় সামান্য পতন ঘটিয়েছে, 200 পয়েন্ট মতো, সাত দিনে আগের দর 1.2825-এর অঞ্চলে ফিরে গিয়ে;
  • USD/JPY। গত সপ্তাহে এই জুটির পূর্বাভাস দিতে গিয়ে আমরা বিশ্লেষক এবং বিশ্লেষণের প্রযুক্তিগত টুল উভয়ের মধ্যেই সম্পূর্ণ ধন্ধ ও মতানৈক্য লক্ষ্য করেছিলাম।  ফাটকা কারবারিরা মনে হয় জাপানের মুদ্রার ব্যাপারে কিছু সময়ের জন্য আগ্রহ হারিয়েছে, ফলত, এই জুটি বেশিরভাগ সময়ে 108.45-108.75-এর অলিন্দে ঘোরাফেরা করেছে। পরিস্থিতি পাল্টানোর জন্য বিয়ার-এর করা দুটি প্রচেষ্টাকে বিবেচনায় আনা যায় না, কারণ এই জুটি অত্যন্ত দ্রুত অত্যন্ত-সংকীর্ণ চ্যানেলে ফিরে যায়, মাত্র 30 পয়েন্ট চওড়া, উপরের সীমার কাছাকাছি যার মধ্যে এটি অন্তিম পয়েন্টে আসে, 108.65-তে থমকে গিয়ে;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। এক বিশ্লেষণকারী যেমন বলেছেন, ফেসবুক প্রধান গত সপ্তাহে “ক্রিপ্টোকারেন্সির কফিনের শেষ পেরেকটি গেঁথে দিয়েছেন”। আরও স্পষ্ট করে বললে, জুকারবার্গ এবং কংগ্রেসসদস্যগণ সম্মিলিতভাবে এই পেরেক গেঁথেছেন, জুকারবার্গের হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভস ফাইনান্সিয়াল সার্ভিস কমিটি-র সামনে হাজিরার সময়। কংগ্রেসসদস্যেরা শুধু সাধারণভাবে ক্রিপ্টোকারেন্সির প্রসারের ব্যাপারে এবং বিশেষত লিব্রা-র ব্যাপারে উদ্বেগ জানাননি। তারা বলেছেন, ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলি প্রচলিত মুদ্রার বাজারের জন্য আংশকার বিষয় এবং তা আর্থিক অপরাধ ও মানি লন্ডারিংয়ের জন্য ব্যবহৃত হতে পারে। কিন্তু সেটাই সব নয়: শুনানি চলাকালীন, ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলিকে সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ ঘোষণা করার জন্য একটা বিল আনার ব্যাপারেও একটি প্রস্তাব পেশ করা হয়।
    মার্ক জুকারবার্গের ক্ষেত্রে, তিনি বলেন, নিয়ামক সংস্থাগুলির অনুমোদন না পাওয়া অবধি লিব্রা চালু করা হবে না। এবং সাধারণভাবে, তার মতে, লিব্রা একটি ঝুঁকিপূর্ণ প্রকল্প, এবং তিনি, জুকারবার্গ, তার এই উদ্যোগ তাকে লাভের মুখ দেখাবে কিনা সে ব্যাপারে তিনি একেবারেই নিশ্চিত নন।
    মনে করে দেখুন যে, টেলিগ্রাম, মার্কিন আইনসভার জটিলতার প্রেক্ষাপটে, “পিছনে ফিরে গেছিল” এবং তাদের TON ক্রিপ্টোকারেন্সির সূচনা স্থগিত করে দিয়েছিল।
    আমরা বারে-বারে এটি লিখে গেছি যে, ক্রিপ্টো-বাজার যতটা সম্ভব খবরের পটভূমির উপর নির্ভর করে। আর মার্কিন কংগ্রেস থেকে আসা খবর, গত 23শে অক্টোবর, বুধবার, বেঞ্চমার্ক মু্দ্রার পাঁচ-মাসের নিম্ন স্তরে নেমে আসার ঘটনা ঘটিয়ে দেয়, একদিনে প্রায় $1,000 কমে গিয়ে, এবং $7.330-র তলানিতে নেমে গিয়ে।
    কিন্তু ক্রিপ্টোর চমক এখানেই শেষ হয়নি, এবং বোঝা গেছে যে, এই বাজারে কবরে পাঠানোর সময় এখনও আসেনি। 25শে অক্টোবর, শুক্রবার, বাজারে আক্ষরিক অর্থেই বিস্ফোরণ ঘটে এবং বিটকয়েনের বিনিময় দর $3,000-এর এক অবিশ্বাস্য লাফ দেয়, সর্বাধিক 40% যোগ করে, $10,500-এ পৌঁছায়।
    2014-র ফেব্রুয়ারি মাসের পর থেকে এটাই ছিল সর্বোচ্চ বৃদ্ধি, এবং তা-ও ঘটে সেই খবরেরই কারণে: এই খবরের কারণে যে চীনের রাষ্ট্রপতি জি জিনপিং ব্লকচেইন তৈরিকে সমর্থন করেছেন। একই সঙ্গে, চীনা খবরের কাগজ পিপলস ডেইলি-র সম্পাদকীয়তে, যেখানে এই বিবৃতির ব্যাপারে বলা হয়, সাধারণভাবে বিটকয়েন বা ক্রিপ্টোকারেন্সির ব্যাপারে একটি শব্দও ছিল না, কিন্তু ঊর্ধ্বগতি (বুল) তাদের তোয়াক্কা করেনি।
    বিটকয়েনের পদাঙ্ক অনুসরণ করে শীর্ষস্থানীয় 100 অল্টকয়েনের প্রায় সবগুলিই উঠেছিল। ইথিরিয়াম (ETH/USD) প্রায় 30%, রিপল (XRP/USD) - 31%, লিটকয়েন (LTC/USD) - 35% উঠে।
    ফলস্বরূপ, কয়েনধারক ও কারবারিরা যাদের কাছে ইতিমধ্যেই বিটকয়েন ও অন্যান্য ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলির লম্বা পজিশন খোলা ছিল, তারা উল্লেখযোগ্য রকমের মুনাফা অর্জনে সমর্থ হন। যারা “ছেড়ে যাওয়া ট্রেনের শেষ কামরায় লাফিয়ে উঠেছিল”, তারা উল্লেখযোগ্য রকমের লোকসানের মুখ দেখে: BTC/USD খুব দ্রুত ঘুরে যায় এবং $9,055-র স্তরে পতিত হয় - যা একটি শক্তিশালী অবলম্বন যেটার উপর এই জুটি গত জুনের মাঝামাঝি সময় থেকে ভরসা করে আসছিল।

 

আগামি সপ্তাহের পূর্বাভাসের ক্ষেত্রে, একাধিক বিশ্লেষকদের মতামতগুলোকে, ও সেই সঙ্গে প্রযুক্তিগত ও গ্রাফিক্সভিত্তিক বিশ্লেষণের বহুবিধ পদ্ধতির ভিত্তিতে করা পূর্বাভাসগুলোকে একত্রিত করে, আমরা নিম্নোক্ত কথাগুলো বলতে পারি:

  • EUR/USD। কিছু বিশ্লেষকদের বিশ্বাস, আগামি সপ্তাহটা সম্ভবত এই বছরের “সবচেয়ে আকর্ষক” হতে চলেছে। 31শে অক্টোবর UK-র ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাবার সম্ভাবনার পাশাপাশি, তার আগের দিন, বুধবার, মার্কিন ফেডেরাল রিজার্ভ ডলারের উপর তাদের সুদের হার 2.0% থেকে 1.75%-এ নামিয়ে আনতে পারে।  ফেডেরাল রিজার্ভ প্রধান জেরোম পাওয়েল মনে হচ্ছে রাষ্ট্রপতি ট্রাম্পের আকুতির কাছে নতিস্বীকার করলেন। তার অফিস ইতিমধ্যেই $600 বিলিয়ন ডলারের একটি মাসিক সম্পত্তি ক্রয় কার্যক্রম অক্টোবর মাস থেকেই চালু করেছে, এবং এইবার মার্কিন ভূসম্পত্তি ক্ষেত্রকে উদ্দীপনা দেবার এই হল আরেকটি পদক্ষেপ। কোন কারণে কোয়ান্টিটেটিভ ইজিং (QE) যা ঘটাচ্ছে পাওয়েল তা মনে করতে চান না, বরং তিনি সম্ভবত সঠিক: একাধিক বিশেষজ্ঞের বিশ্বাস এটি ডলারের শক্তি নির্গত হওয়া এবং অসুরক্ষিত অর্থের জোগান দিয়ে অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার চেষ্টা। নির্দিষ্ট মাত্রার সম্ভাবনার সঙ্গে, এর কারণ হল, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন রাষ্ট্রপতি নির্বাচন। আর ট্রাম্প, যিনি দ্বিতীয়বার নির্বাচিত হতে চাইছেন, ফেডেরাল রিজার্ভকে চাপ দিয়ে চলেছেন রেট আরও কমিয়ে শূন্যে নামিয়ে আনার জন্য।
    ফেডেরাল রিজার্ভের বৈঠকের অল্প সময় আগে, 30শে অক্টোবর, US GDP সংক্রান্ত প্রাথমিক ডেটা জানা যাবে এবং পূর্বাভাস অনুসারে, এতে তৃতীয় ত্রৈমাসিকে অর্থনৈতিক বৃদ্ধিতে 2.0% থেকে 1.6% মন্দা দেখা যেতে পারে। যদি তাই হয়, ট্রাম্প পাওয়েল ও তার পরিচালিত ফেডেরাল রিজার্ভের উপর আর এক দফা চাপ তৈরি করবেন।
    আগামি সপ্তাহের অন্যান্য ঘটনাগুলির ক্ষেত্রে, GDP বৃদ্ধির প্রাথমিক অনুমান এবং ইউরোজোন-এ মুদ্রাস্ফীতি সংক্রান্ত ডেটা খেয়াল রাখাটা খুবই জরুরি, যা 31শে অক্টোবর, বৃহস্পতিবার জানা যাবে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শ্রমবাজার (NFP সমেত) এবং ISM-এর বিজনেস অ্যাক্টিভিটি ইন্ডেক্স সংক্রান্ত ডেটাগুলি প্রচলিত রীতি অনুযায়ী আগামি 01লা নভেম্বর, শুক্রবার প্রকাশিত হবে।
    আগামি সপ্তাহের জন্য বিশেষজ্ঞদের পূর্বাভাসগুলিকে একত্রিত করলে, কোন নির্দিষ্ট মতামত তৈরি করা সম্ভব হয়নি। 50% এই জুটির পতনের পক্ষে এবং 50% উত্থানের পক্ষে। একইরকম অনৈক্য D1-এর উপরের সূচকগুলির মধ্যেও দেখা গেছে। এর কারণ হল, সুদের হার নিয়ে ফেডেরাল রিজার্ভের সিদ্ধান্ত এবং EU-থেকে ব্রিটেন বেরিয়ে যাবে না যাবে না এই ব্যাপারগুলির অনিশ্চয়তা।
    এটি মনে রাখা উচিৎ যে, চুক্তি ছাড়া প্রস্থানের ঘটনা না ঘটলেও এবং Brexit-এ বিলম্ব হলেও, তা ইউরো-র বিনিময় দরে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে, যার পরিণামস্বরূপ এই জুটি 01লা অক্টোবরের সর্বনিম্ন স্তর 1.0880-র অঞ্চলের দিকে ছুটে যাবে, যা নভেম্বর মাসেই ঘটতে পারে। 70% বিশেষজ্ঞ এই পূর্বাভাসের সঙ্গে সহমত পোষণ করেন। প্রধান অবলম্বনগুলি রয়েছে 1.1065, 1.1000 এবং 1.0940-এর স্তরগুলিতে।
    EU-এর সাথে চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়টি, UK পার্লামেন্টের অনুমোদনের পর, এই জুটিকে 1.1350-1.1400-র অঞ্চলে ঠেলে তুলে দেবে।  প্রতিরোধের অঞ্চলগুলি হল 1.1180, 1.1240 এবং 1.1300।
  • GBP/USD। বেশিরভাগ বিশেষজ্ঞ (60%) অদূরভবিষ্যতে পাউন্ডের জন্য ভাল কিছু আশা করেন না। D1-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ এবং H4-এর উপরের সূচকগুলির মধ্যে 80%-এর সাথে পুরোপুরি সহমত পোষণ করে, তারা এই জুটির 1.2500-এর স্তর অবধি পতনের জন্য অপেক্ষা করে রয়েছেন। অবলম্বনগুলি হল 1.2770 এবং 1.2580। 
    অন্যদিকে, H4-এর উপরের অসিলেটরগুলির মধ্যে 20% ইতিমধ্যেই এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত বিক্রির ইঙ্গিত দিয়েছে এবং D1-এর উপর তাদের “সতীর্থদের” 90%-র রং সুবজ হয়ে গেছে। D1-এর উপরের প্রবণতা সূচকগুলির 85% উত্তর দিকে ও সেই সঙ্গে উচ্চতার 1.3200 লক্ষ্যের দিকে চেয়ে আছে।
    এই সপ্তাহের “সবুজ কর্মকাণ্ডের” তালিকায় মাত্র 30% বিশেষজ্ঞ ছিলেন। বাকি 10% কোন রকম পূর্বাভাস দিতে চাননি এবং, সম্ভবত, তারাই ঠিক করেছেন: ব্রিটিশ রাজনীতিকেরা যে কোন যুক্তি, হিসেব-নিকেশ এবং পূর্বাভাসকে আস্তাকুঁড়ে পৌঁছে দিতে পারেন;
  • USD/JPY। তাত্ত্বিকভাবে, ইয়েনর লক্ষ্যমাত্রাগুলি অপরিবর্তিতই থেকে গেছে। অবলম্বন অঞ্চলগুলি হল 107.00, 106.65 এবং 105.70, প্রতিরোধের অঞ্চলগুলি হল 109.00 এবং 109.85। কিন্তু সেটা তাত্ত্বিকভাবে। বাস্তবে, দীর্ঘমেয়াদি বন্ডগুলি, যেগুলির সঙ্গে জাপানের মুদ্রা মজবুতভাবে সম্পর্কযুক্ত, সংকীর্ণ শ্রেণিতেই সংকুচিত হয়ে থেকে গেছে, বিনিয়োগকারীদের ঝুঁকি নেবার খিদেকে দমন করে। নিশ্চিতভাবেই, এই সপ্তাহের উপরের ঘটনাগুলি, সেই সঙ্গে সুদের হারের ব্যাপারে ব্যাংক অব জাপান-এর 31শে অক্টোবর, বৃহস্পতিবার আসতে চলা সিদ্ধান্ত ইয়েনের প্রতি আগ্রহে রসদ জোগাতে পারে, কিন্তু সেটাও সেই তত্ত্বই। প্রায় 100% সম্ভাবনার সাথেই, নিয়ামকের তরফে সুদের হার -0.01%-এর অপরিবর্তিত জায়গাতেই রেখে দেওয়া হবে।
    মজার বিষয় হল, জে.পি. মর্গান চেজ-এর বিশ্লেষকেরা মনে করেন সেন্ট্রাল ব্যাংকের রেটগুলিই শুধুমাত্র অর্থনীতির মন্দা কাটিয়ে ওঠার অন্তরায় এই ধারণা একটি “খারাপ ধারণা”। বিশেষজ্ঞদের মধ্যে সমীক্ষা চালিয়ে দেখা গেছে তাদের মধ্যে 80% এদের সঙ্গে সহমত পোষণ করেন, যারা ইয়েনের পতন জারি থাকবে বলে, এই জুটি অবশেষে 108.45-108.75 অলিন্দের উচ্চ সীমা টপকে যাবে বলে এবং আরও উত্তর দিকে কিছুটা উঠবে বলে প্রত্যাশা করেন। কিন্তু H4-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ, অন্তত সপ্তাহের প্রথম অর্ধ অবধি এই জুটির পার্শ্ববর্তী গতি জারি থাকার পূর্বাভাস দেয়।
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। অতএব, এই সপ্তাহে, BTC/USD প্রথমে দ্রুত তাদের দামে $1,000 খোয়ায়, তারপর আরও দ্রুততার সঙ্গে $3,000 ওঠে, এবং তারপর আবার পড়ে যায়, দামে $1,445 সংকোচন ঘটিয়ে।  এই ধরনের অস্থিরতার পরিস্থিতির মধ্যে কোন পূর্বাভাস দিতে চেষ্টা করাটা অকৃতজ্ঞের মতো কাজ। প্রযুক্তিগত বিশ্লেষণের টুলগুলির উপর ফোকাস করাটা সাধারণত অনর্থক। বাজারকে কিছুটা শান্ত হওয়ার সুযোগ দেওয়া এবং চীনা রাষ্ট্রপতি ঠিক কী বোঝতে চেয়েছেন তা উপলব্ধি করাটা খুবই জরুরি।

 

 

রোমান বুটকো, NordFX

 

দ্রষ্টব্য: এই বিষয়বস্তুটিকে বিনিয়োগের সুপারিশ অথবা আর্থিক বাজারগুলিতে কাজ করার দিকনির্দেশ হিসেবে বিবেচনা করা উচিৎ হবে না: এগুলির উদ্দেশ্য শুধুমাত্র তথ্য সরবরাহ করা  আর্থিক বাজারগুলিতে কেনা-বেচা করা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ এবং তা লগ্নীকৃত অর্থ পুরোপুরি হারানোর কারণ হতে পারে


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)