অগাস্ট 17, 2019

প্রথমে, গত সপ্তাহের ঘটনাগুলোর একটা পর্যালোচনা:

  • EUR/USD। যেমনটি বেশিরভাগ বিশেষজ্ঞই প্রত্যাশা করেছিলেন, যাকে ভৌগোলিক বিশ্লেষণও সমর্থন করছিল, ডলার গত সপ্তাহে ঊর্ধ্বমুখী হয়, যেখানে ইউরোর সাথে সাথে EUR/USD জুটিরও পতন হয়। এটা সত্যিই যে, এই জুটির জন্য নির্ধারিত লক্ষ্য, 1লা আগস্টের নিম্ন স্তর, 1.1025-এ পৌঁছায়নি, স্থানীয় সর্বনিম্ন স্তর 1.1065-কে পেয়ে গিয়ে।
    ইউরোপীয় মুদ্রার পতনের প্রথম কারণ হল, ব্যাংক অব ফিনল্যান্ডের জেনারেল ডিরেক্টর তথা ECB-র প্রাক্তন পদপ্রার্থী ওলি রেন-এর “ফাঁকা” প্রতিশ্রুতি। এই বিশিষ্ট ইউরোপীয় আধিকারিকের বিবৃতি অনুযায়ী, সেপ্টেম্বরের মধ্যেই বাজারে মূল দরগুলির মধ্যে 0.1 (এবং সম্ভবত 0.2) শতাংশ পয়েন্ট হ্রাস প্রত্যাশা করা যাচ্ছে (এখন যেটা -0.04%), সেই সঙ্গে QE-র পরিমাণগত সুরাহার কর্মসূচির পুনরারম্ভ মাসিক আনুমানিক 50 বিলিয়ন পরিমাণ হতে পারে।
    তার সঙ্গে, জার্মানি ও চীন থেকে আসা সেরা অর্থনৈতিক পরিসংখ্যানগুলি এবং US-এর খুচরো বিক্রিতে অপ্রত্যাশিত বৃদ্ধিও ডলারের পক্ষে যায়নি।  বাজার প্রত্যাশা করছিল এই সূচক 0.7% থেকে পড়ে গিয়ে 0.3% আসবে, কিন্তু তা বেড়ে 1.0%-এ এসে দাঁড়ায়।
  • GBP/USD। গত সপ্তাহে, বিশ্লেষণকারীরা ব্রিটিশ পাউন্ডে কোন উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন প্রত্যাশা করেননি, তাই তাদের পূর্বানুমানকে নিরপেক্ষ হিসেবে শ্রেণিভুক্ত করা হয়েছিল। প্রয়োগিক বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে, H4 ও D1-এর উপর অসিলেটরের 25%-ই এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত বিক্রির সংকেত দিয়েছিল, যা, যেমনটি কার্য ক্ষেত্রে দেখা যায়, বিপরীতমুখী প্রবণতার ও আশু সংশোধনের প্রবল সংকেত। যা ঘটেছিল তা ছিল এইরকম: 1.2015-র স্তর থেকে প্রতিক্ষিপ্ত হয়ে, এই জুটি শুক্রবার সপ্তাহের সর্বোচ্চ স্তর 1.2175-কে ঠিক করে দিয়ে উত্তরে চলে গেছিল। অন্তিম পাঁচ দিনের সুর 1.2140 অঞ্চলে বেজেছিল, যাকে আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহের পিভোট পয়েন্ট বলা যেতে পারে; 
  • USD/JPY। বিশ্লেষকদের এক তৃতীয়াংশ, যাকে H4 ও D1-এর উপর অসিলেটরদের 85% এবং প্রবণতা সূচকগুলির 100% সমর্থন করেছিল, এ ব্যাপারে নিশ্চিত ছিলেন যে, মুদ্রার ডামাডোলে জাপানি মুদ্রাই একটি শান্ত আশ্রয়ের ভূমিকা পালনের কাজ করে যাবে, এবং তাই এই জুটির পতন জারি থাকবে 3রা জানুয়ারী, 2019 তারিখে 105.00-র স্তর অবধি। সেটাই হয়েছিল এবং 12ই আগস্ট সোমবার সেই অঙ্কেই এই জুটি পৌঁছে গেছিল।
    বিশ্লেষকদের আরেক তৃতীয়াংশ এবং D1-এর উপর ভৌগোলিক বিশ্লেষণ প্রবণতা ঊর্ধ্বমুখী হবে এবং এই জুটি 107.00-এ উঠবে বলে ভোট দেন, যেখানে এই জুটি পরের দিনই, মঙ্গলবার, 13ই আগস্টে উঠেছিল।
    সপ্তাহের শেষটা বিশ্লেষকদের বাকি তৃতীয়াংশকে সন্তুষ্ট করেছিল, যারা একটি নিরপেক্ষ অবস্থান নিয়েছিলেন। আপনারা যদি গত দুই সপ্তাহের গ্রাফ দেখেন তাহলে দেখবেন, এই জুটি 105.00-107.00-এর সাইড চ্যানেলে চলে গেছিল এবং এর কাজের সেশনকে এর কেন্দ্রে, 106.35-এ গিয়ে সম্পূর্ণ করেছিল। এইভাবে, তিনটি অবস্থার সবকটিই পূরণ হয়েছিল বলে ধরা যেতে পারে - ঊর্ধ্বমুখী, নিম্নমুখী এবং নিরপেক্ষ;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। ক্রিপ্টোকারেন্সির প্রতি উৎসাহীদের মধ্যে অন্যতম Fundstrat বিশ্লেষক টম লি বা Morgan Creek-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা অ্যান্থনি পমপ্লিয়ানো বিটকয়েনের মর্যাদা বৃদ্ধির চেষ্টা চালিয়ে যাবেন এই দাবির মধ্যে দিয়ে যে, এটি ইতিমধ্যেই একটি নিরাপদ সম্পদে পরিণত হয়েছে, সোনা বা জাপানি ইয়েনের পাশাপাশি। আর এখানেই প্রশ্নটা এসে যায়, এটি কেমন ধরনের আশ্রয়, যদি শুধু 8 থেকে 15 আগস্টের মধ্যে এই ডিজিটাল মুদ্রা তার মূল্যের 20% হারিয়ে, $12,000 থেকে পতিত হয়ে $9,500-এ এসে পৌঁছায়?
    এইরকম উন্মাদের মতো অস্থিরতা নিয়ে বিটকয়েন কখনই একটি নিরাপদ আশ্রয় নয়, বরং উচ্চ ঝুঁকির ফাটকা-র জন্য একটি আদর্শ হাতিয়ার। ভাল এবং আশ্রয়ও, কিন্তু চিরাচরিত আর্থিক বাজারের উঠানামা থেকে নয় বরং... ডিজিটাল বাজারে তার চেয়ে ছোট সহকর্মী, বিকল্প মুদ্রার, থেকে সূদের নিরন্তর পতন ঘটে চলেছে।
    আপনারা যদি বিকল্প মুদ্রাবাজারের গতিশীলতা দেখেন, 26শে জুন তারিখে শীর্ষবিন্দু থেকে শুরু করে, এর মূলধনের জোগান $124 থেকে $79 বিলিয়নে নেমে এসেছে, যেটা 36%-এরও বেশি। বিটকয়েনের লোকসান দ্বিগুণ নিচে :18% ($229 বিলিয়ন থেকে পড়ে $187 বিলিয়নে)। সেই মতো, বিনিয়োগকারীরা ধীরে ধীরে এমনকি এথিরিয়াম (ETH), রিপল (XRP) এবং লাইটকয়েন (LTC) ইত্যাদির মতো শীর্ষস্থানীয় কয়েনগুলির প্রতিও আগ্রহ হারাচ্ছে, তাদের মনোযোগ বিটকয়েনে (BTC) সরিয়ে নিয়ে গিয়ে, যার বাজারের অংশ 70%-এরও বেশি।

 

আগামি সপ্তাহের পূর্বাভাসের ক্ষেত্রে, একাধিক বিশ্লেষকদের মতামতগুলোকে, ও সেই সঙ্গে প্রযুক্তিগত ও গ্রাফিক্সভিত্তিক বিশ্লেষণের বহুবিধ পদ্ধতির ভিত্তিতে করা পূর্বাভাসগুলোকে একত্রিত করে, আমরা নিম্নোক্ত কথাগুলো বলতে পারি:

  • EUR/USD। একটি ইউরোপীয় স্কেলে, Eu-এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার চীনের অর্থনৈতিক বৃদ্ধিতে মন্দার প্রভাব রয়েছে, জার্মানিতে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড দুর্বল রয়েছে, ইতালী ও Brexit-এর সমস্যা রয়েছে। অন্যটিতে, আমেরিকারটিতে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাক্রো পরিসংখ্যান দেখতে বেশ ভাল এবং ফেডেরাল রিজার্ভের নেতৃবর্গ এই দাবি করছে যে, আমেরিকার অর্থনীতি একটি শক্তপোক্ত ভিতের উপরে দাঁড়িয়ে আছে এবং তা কোন বাণিজ্যিক যুদ্ধের আংশকা করছে না। মনে হবে যে, কোন দিকে সুযোগটার থাকা উচিৎ সেই প্রশ্নটার উত্তরটা পরিষ্কার: ডলারের দিকে। 65% বিশেষজ্ঞেরা ঠিক এইটাই বিশ্বাস করেন, যাকে H4 ও D1-এর উপরের অসিলেটরগুলো ও প্রবণতা সূচকগুলোর প্রায় 100%-ই সমর্থন করে। অন্তর্বতী লক্ষ্য 1.1000-1.1025 অঞ্চলের সাপোর্ট, যেটাকে ভেঙ্গে বেরিয়ে 1:1 সমতুল্যতার জন্য শুধু 1000 পয়েন্ট থাকবে। পতনের বর্তমান হারে, এই দূরত্ব অতিক্রম করার জন্য এক বছরের কিছুটা বেশি সময় লাগতে পারে। (মনে করে দেখুন, এই জুটি আগেই ডিসেম্বর 2016-এ 1.0350-র স্তরে নেমে যাচ্ছিল)।
    তবে, আপনি যদি অন্যান্য স্কেলগুলিকে কল্পনা করেন, সবকিছু ততটা স্পষ্ট হয়ে ওঠে না। তাহলে, ইউরোপীয় স্কেলটিতে, ইউরোর সূদের হার কমছে যা সেপ্টেম্বরের জন্য ওলি রেন ঘোষণা করেছেন এবং QE কার্যক্রমে পুনরুজ্জীবন হচ্ছে। আর US স্কেলে - US অর্থনীতিতে মন্দা, ফেডেরাল রিজার্ভের প্রতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের অসন্তুষ্টি, যার ফলস্বরূপ 2019-এর শেষের দিকে ডলারের দর 2.25% থেকে কমে 1.85% হওয়ার সম্ভাবনার প্রত্যাশাগুলি রয়েছে। ফেডেরাল রিজার্ভের প্রধান জেরোম পাওয়েল যদি US প্রেসিডেন্টের চাপের কাছে নতিস্বীকার করেন, তাহলে বিপরীত প্রবণতা ঊর্ধ্বমুখী হবার ও এই জুটি উপরে উঠে 1.1300-1.1400-র অঞ্চলে ছাপ ফেলার মতো সম্ভাবনাগুলিকে বর্জন করা হচ্ছে না। আর অদূর ভবিষ্যতে যদি এই ধরনের সম্ভাবনাকে খারিজ করেন না এমন বিশ্লেষকদের 35% থেকে যায়, তাহলে মাঝারি মেয়াদে তাদের সংখ্যাটা বেড়ে 55% হয়ে যাবে।
    বিশেষজ্ঞদের মতে, 21শে আগস্ট, বুধবারে হতে চলা ফেডেরাল রিজার্ভের বৈঠক ও জ্যাকসন হোলে বার্ষিক অর্থনৈতিক সম্মেলন, যেটাও আগামি সপ্তাহে হতে চলেছে, এই দুটির ফলাফলগুলি থেকে Us-এর আর্থিক নীতি সম্পর্কে একটা পরিষ্কার ছবি বেরিয়ে আসা উচিৎ। সেই সঙ্গে, 22শে আগস্ট, বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হতে চলা আর্থিক নীতি নিয়ে ECB-র বৈঠকের রিপোর্টও খুবই আগ্রহের বিষয় হবে;  
  • GBP/USD। তার থেকেও আকর্ষক আরেকটি পরিস্থিতি UK-তে তৈরি হয়েছে।  এক দিকে, উৎপাদন কমে যাচ্ছে, গত বছরের তুলনায় 0.6% পড়ে। অন্যদিকে, খুচরো বিক্রির পতন 0.3% পড়ে যাবার বদলে, যেমনটি গত জুলাইয়ে প্রত্যাশা করা হয়েছিল, তাতে 0.2% বৃদ্ধি লক্ষ্য করা গেছে। এর থেকে এই ইঙ্গিত পাওয়া যেতে পারে যে, পাউন্ডের পতন দেখে এবং Brexit-এর পরিণামগুলির কথা ভেবে ভয় পেয়ে গিয়ে, দেশের লোকেরা টাকা বাঁচানোর কথা না ভেবে বরং কেনাকাটা করার মনস্থ করেন।
    এই পরিস্থিতি কত দীর্ঘ সময় ধরে থাকবে তা পরিষ্কার নয়। আমাদেরকে নতুন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের পদক্ষেপগুলির জন্য এবং সেগুলির প্রতি ব্রিটিশ পার্লামেন্টের প্রতিক্রিয়ার জন্য অপেক্ষা করে থাকতে হবে। যত দিনে তা ঘটছে, তত দিন এই জুটির পতন চলছে এই বিষয়টি চলতেই থাকবে, বৃহত্তর অংশের মতে (66%), এবং এই জুটি 1.2000-1.220-র সাইড চ্যানেলে থেকে যাবে। নিকটতম অবলম্বন (সাপোর্ট) স্তর হল 1.2050, প্রতিরোধ (রেজিস্ট্যান্স) হল 1.2175।
    গ্রাফিক সহযোগে বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে, H4 ও D1 উভয়ের উপরেই, বহু দিন ধরে পাশের বারান্দায় চলার পর, এই জুটির পতন 2016-র অক্টোবরের নিম্ন স্তর অবধি হবে বলে পূর্বানুমান করা হচ্ছে, 1.1900-1.1940-র অঞ্চলে;
  • USD/JPY। চীন থেকে আমদানি করা পণ্যে অতিরিক্ত শুল্ক চাপানোর বিষয়টি স্থগিত রাখার US কর্তৃপক্ষের নেওয়া সিদ্ধান্ত ডলারকে খুব বেশি সুবিধা করে দিতে পারেনি: বিনিয়োগকারীরা এখনও US-চীন বাণিজ্য-যুদ্ধের শান্তিপূর্ণ সমাপ্তির ব্যাপারে সন্দিহান।  তাই, ইয়েন এখনও একটি শান্ত আর্থিক আশ্রয় হিসেবে তার ভূমিকা পালন করেই যাবে। US অর্থনীতিতে আশু মন্দার এবং US ফেডেরাল রিজার্ভ দ্বারা সূদের হার কমানোর যে প্রত্যাশা করা হচ্ছে, তাও ডলারের বিরুদ্ধেই যাচ্ছে। এর সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে US-এর 10 বছর মেয়াদের বন্ড বিক্রি থেকে আয় কমা, যা ইতিমধ্যেই 1.6% পড়ে গেছে। অধিকন্তু, এই সব সিকিউরিটিগুলির আয়ের বিস্তার শূন্যের নিচে নেমে গেছে। যেটা, তাত্ত্বিকভাবে, জাপানি মুদ্রাকে আরও শক্তি জোগাবে এবং এই জুটির আরও পতন ঘটাবে। তবে, H4-এর উপর করা ভৌগোলিক বিশ্লেষণ দ্বারা সমর্থিত বিশেষজ্ঞেরা এটি বিশ্বাসে আগ্রহী যে, এই জুটি অন্তত আরও একটা সপ্তাহ সাইড চ্যানেল 105.00-107.00-এ থেকে যাবে।  কিন্তু ভবিষ্যতে, তাদের বেশিরভাগই (60%) পতন আশা করেন না, উল্টোদিকে, ডলার শক্তিশালী হবে বলে এবং এই জুটি 108.50-109.00-র অঞ্চলে উঠে যাবে বলে আশা করেন। D1-এর উপর ভৌগোলিক বিশ্লেষণ এই পূর্বাভাস মেনে নেয়;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস দেওয়াটা আশীর্বাদ। আর পূর্বাভাস যত দূরের হবে, তত ভালও হবে। তা যদি সত্যি না হয়, তা হলে ঠিক আছে: অনেকেই অনেক আগেই তা ভুলে গেছে। আর পূর্বাভাস যদি সত্যি হয়, তাহলে আপনি নিজের ব্যাপারে মনে করিয়ে দেবেন।
    উদাহরণস্বরূপ, টিম ড্র্যাপার, যিনি একজন বিনিয়োগকারী ও Draper Associates-এর প্রধান ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন যে, বিটকয়েন $250,000 ছোঁবে, সম্ভবত 2022-র শেষ দিকে, বা হয়ত 2023-এর গোড়ায়।  বেশ, মাত্র তিন বছর অপেক্ষা করতে হবে।
    আমরা যদি কাছাকাছি পূর্বাভাসগুলির ব্যাপারে আরও কথা বলি, তাহলে দেখব, বিখ্যাত ক্রিপ্টোকারেন্সি বিশ্লেষক নিকোলাস মার্টেন এ ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী যে, কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই বিটকয়েন $15,000-এ পৌঁছাবে। তার সঠিক হওয়া সম্ভব, আর একটি বিরপীত প্রবণতা খুব কাছাকাছিই আছে, কিন্তু এখনও অবধি কেনার স্পষ্ট কোন লক্ষণ চোখে পড়েনি, এবং বিটকয়েন ত্রাস ও লোভের সূচক এখনও “ত্রাস” হয়ে আছে।

 

রোমান বুটকো, NordFX

 

দ্রষ্টব্য: এই বিষয়বস্তুটিকে বিনিয়োগের সুপারিশ অথবা আর্থিক বাজারগুলিতে কাজ করার দিকনির্দেশ হিসেবে বিবেচনা করা উচিৎ হবে না: এগুলির উদ্দেশ্য শুধুমাত্র তথ্য সরবরাহ করা। আর্থিক বাজারগুলিতে কেনা-বেচা করা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ এবং তা লগ্নীকৃত অর্থ হারানোর কারণ হতে পারে।


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)