অগাস্ট 10, 2019

প্রথমে, গত সপ্তাহের ঘটনাগুলোর একটা পর্যালোচনা:

  • EUR/USD। এই জুটি 1.1200-র আশে-পাশের স্তরের মজবুত অবলম্বন (সাপোর্ট)/প্রতিরোধের অঞ্চলে স্থিতিশীল হচ্ছে। সাধারণভাবে, এই জুটির জন্য 1.1150-1.1215 অঞ্চলটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ, কারণ সেটাকেই 2015-2016-র প্রধান পিভোট পয়েন্ট বলা যেতে পারে। আর এখন, তিন বছর পর, এই জুটি আরও একবার সেই অঞ্চলেই পতিত হয়েছে, যা বাজারে কিছু অনিশ্চয়তার ইঙ্গিত দিতে পারে।
    অনিশ্চয়তার একাধিক কারণ রয়েছে।
    প্রথমত, এটি US-চীন বাণিজ্য-যুদ্ধের আরেকটি পর্বরের শুরুর সময়। মার্কিন রাষ্ট্রপতি শুধু 1লা সেপ্টেম্বর থেকে চীনা পণ্যের পরবর্তী শ্রেণিগুলোর জন্য 10 শতাংশ কর আরোপ করেই থেমে থাকেননি, তিনি চীনের বিরুদ্ধে “মুদ্রায় কারসাজি” করার কথাও বলেছেন এবং US কোম্পানিগুলোকে Huawei-এর সঙ্গে বাণিজ্যের লাইসেন্স দেবার বিষয়টিকে স্থগিত রাখার পরিকল্পনাও করছেন।
    বাহ্যিক লড়াইয়ের সাথে সাথে, ট্রাম্পকে তার নিজের ফেডেরাল রিজার্ভের সঙ্গেও একটি অভ্যন্তরীণ লড়াই লড়তে হবে। তিনি গত 08ই আগস্ট তাঁর টুইটারে লেখেন: “আমাদের কোম্পানিগুলো বিশ্বের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ, কাছাকাছিও কেউ আসে না, কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত, আমাদের ফেডেরাল রিজার্ভ সম্পর্কে তা বলা যায় না। তারা প্রতি পদে এটাকে ভুল বলে এসেছে…”। এটা একটা টোটকা মার্কিন অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার, যা মন্দার প্রভাব থেকে মাত্র এক কদম দূরে রয়েছে, যার জন্য ট্রাম্প মজবুত ডলারকেই দোষারোপ করছেন। তিনি লিখেছেন, “অন্য দেশগুলোর তুলনায় ফেডেরাল রিজার্ভের চাপানো উচ্চ সূদের হার ডলারের মূল্য আকাশ ছোঁয়া করে রেখেছে, যা আমাদের অসাধারণ সব উৎপাদনকারীদের কাজকে কঠিন করে তুলেছে…একটি ন্যায্য প্রতিযোগিতার ক্ষেত্রে লড়াই করার।”
    তাহলে, বাজার এখন US-এর নেতৃত্বের থেকে এমন কিছু পদক্ষেপ আশা করছে যার লক্ষ্য হবে শিল্পে অবনমন রোধ করা। কিন্তু ECB-ও একই পদক্ষেপ নেবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে, কারণ ইউরোজোনও অর্থনীতি যেহেতু, EU-এর মধ্যেকার অর্থনৈতিক সংঘর্ষ ও রাজনৈতিক অস্থিরতার দ্বারা অবদমিত হয়ে, তাদের সেরা অবস্থায় নেই এবং জার্মান বন্ড থেকে আমদানি রেকর্ড পরিমাণ নিচে নেমে গেছে। তবে, ইউরোপর জন্য সূদের হার করমানোটা দু’দিকে ধারওয়ালা তলোয়ারের মতো। শিল্পের বৃদ্ধিকে চাঙ্গা করার মধ্যে দিয়ে এই পদক্ষেপ ইউরোপের ব্যাংক ব্যবস্থাগুলোর জন্য গুরুতর সমস্যার সৃষ্টি করবে। ব্লুমবার্গ বিশেষজ্ঞদের মতে, ইউরো আমানতগুলোতে সূদের হার -0.5%-এ নামিয়ে আনা হলে তা পরিষেবা প্রদানের সঙ্গে জড়িত ব্যাংকগুলোর ব্যয়ের ঋণাত্মক হারকে 60% বাড়িয়ে দেবে। বিনিয়োগকারীরা তেলের দামের নিরন্তর পতনেও একেবারেই খুশী নন। সৌদি আরবের তরফে “কালো সোনা”-র দাম অন্তত বর্তমান স্তরে রেখে দেবার বিপুল প্রয়াস চালানো হচ্ছে, কিন্তু এইসব পদক্ষেপগুলোর পরিণাম সন্দেহজনক হয়েই রয়ে গেছে;
  • GBP/USD এবং USD/JPY। বেশিরভাগ বিশেষজ্ঞই এই দুটি জুটিরই পতন প্রত্যাশা করেছিলেন। আর আপনার যদি সপ্তাহের ফলাফল দেখেন, সেই পূর্বাভাস পুরোপুরি সত্যিও হয়েছিল, যদিও তাদের একটা অবশ্য তার লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেনি। এইভাবে, 75% বিশ্লেষণকারীই GBP/USD জুটিকে মোটামুটি 1.2000-এর আশেপাশে দেখবেন বলে প্রত্যাশা করেছিলেন, কিন্তু সপ্তাহের নিম্ন স্তর কিছুটা উঁচুতে নির্দিষ্ট হয়েছিল, 1.2025-এর স্তরে। এইভাবে, ডলারের সাপেক্ষে ব্রিটিশ পাউন্ডের লোকসানের পরিমাণ ছিল 135 পয়েন্ট।
  • USD/JPY-এর ক্ষেত্রে, পাউন্ডের বিপরীতে, ইয়েন কিন্তু মার্কিন মুদ্রার তুলনায় নিরন্তর নিজের শক্তি বৃদ্ধি করে গেছে। বিশ্লেষকগণ (60%) প্রত্যাশা করেছিলেন এই জুটি জানুয়ারী, 2019-এর 105.00-র আশেপাশে পৌঁছাতে সক্ষম হবে। তবে, এই পতন 105.40 (গত সপ্তাহের থেকে 120 পয়েন্ট কম) হরাইজনে এসে থেমে যায়, যার পর তার ঊর্ধ্বমুখী গতি লক্ষ্য করা যায়, এবং এই জুটি তাদের পাঁচ-দিনের পর্ব 105.65-এ এসে সম্পূর্ণ করে;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। Google ও Facebook-এর প্রাক্তন CEO, অভিচল গার্গ, এ বিষয়ে নিশ্চিত যে, ক্রিপ্টোকারেন্সি বাজারে বিটকয়েনের প্রকৃত আধিপত্য ক্রিপ্টোকারেন্সি সার্ভিসেস দ্বারা প্রকাশিত পরিসংখ্যানের থেকে অনেক বেশি, এবং তা প্রকৃতপক্ষে 75% ছাড়িয়ে যায়। গার্গের মতে, পরিমাপের বর্তমান মানদণ্ডগুলোর পরিমার্জনের প্রয়োজন আছে, যেহেতু এখন এগুলিতে নগদবিহীন বিপুল সংখ্যক বিকল্প মুদ্রাগুলোকেও (অল্টকয়েন) বিবেচনায় রাখা হয়। আর এটা এই সম্ভাবনাকে একেবারেই বর্জন করে না যে, শীঘ্রই আমরা বিটকয়েনের ভাগ 80%-এর গণ্ডিকে ছাপিয়ে যেতে দেখব, বা এমনকি 90%-কেও। এই অগ্রগতির সপক্ষে একটা যুক্তি দেওয়া হয় যে, BTC ক্রমশ একটা অত্যন্ত জনপ্রিয় নিরাপদ সম্পদে পরিণত হয়ে উঠছে। “বিটকয়েন বিশ্বের ঝুঁকির বিরুদ্ধে একটা রক্ষাকবচ হিসেবে প্রতিপন্ন হয়েছে, কারণ এটা সোনার সঙ্গে ইতিবাচক এবং শেয়ার বাজারগুলোর সঙ্গে নেতিবাচক পারস্পরিক সম্পর্ক প্রদর্শন করে,” CNBC-কে দেওয়া একটা সাক্ষাৎকারে বললেন Fundstart-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও বরিষ্ঠ বিশ্লেষক টম লি। আর গত সপ্তাহের চার্টগুলো দেখুন, ওনার সঙ্গে কেউই দ্বিমত পোষণ করতে পারবেন না। সাধারণত, শীর্ষস্থানীয় বিকল্প মুদ্রাগুলো প্রধান ক্রিপ্টোকারেন্সির গতিময়তার পুনরাবৃত্তি ঘটিয়েছে। এখন, BTC/USD জুটি একটা স্থিতিশীল বৃদ্ধি দেখানো সত্ত্বেও, গোটা সপ্তাহে আনুমানিক $1,500 যোগ করে এবং $11,500-12,120-র অঞ্চলে পা রাখতে সমর্থ হয়ে, প্রধান বিকল্প মুদ্রাগুলো, যার মধ্যে Litecoin (LTC/USD), Ethereum (ETH/USD) এবং Ripple (XRP/USD) অন্তর্ভুক্ত, সপ্তাহটা লাল অঞ্চল (রেড জোন)-এ শেষ করেছিল। যদিও, নিশ্চিতভাবেই, এতো তাড়াতাড়ি তাদের পুরোপুরি কবরে পাঠিয়ে দেওয়াও যায় না। কিছু কিছু বিশেষজ্ঞের মতে, একাধিক বিকল্প মুদ্রা (যেমন, Ethereum) একক ব্লকচেইন হয়ে উঠতে পারে, আর বিকল্প মুদ্রা হিসেবে বিবেচিত হওয়া বন্ধ করে দিয়ে। বাকিরা অপ্রয়োজনীয় হিসেবে বিস্মৃতির আড়ালে চলে যাবে।

 

আগামি সপ্তাহের পূর্বাভাসের ক্ষেত্রে, একাধিক বিশ্লেষকদের মতামতগুলোকে, ও সেই সঙ্গে প্রযুক্তিগত ও গ্রাফিক্সভিত্তিক বিশ্লেষণের বহুবিধ পদ্ধতির ভিত্তিতে করা পূর্বাভাসগুলোকে একত্রিত করে, আমরা নিম্নোক্ত কথাগুলো বলতে পারি:

  • EUR/USD। H4-এর উপর যদি ট্রেন্ড ইন্ডিকেটর এবং অসিলেটর উভয়েই এখনও উত্তর দিকে দিকনির্দেশ করে, তাহলে D1-এ সম্পূর্ণ আলাদা ছবি আছে: ইন্ডিকেটরগুলোর অর্ধেক মতোই লালা রংয়ে রাঙানো, এবং অসিলেটরদের আরেক 15% এই সংকেত দিচ্ছে যে, এই জুটি মাত্রাতিরিক্ত ক্রয় করা হয়েছে। H4-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে বিশ্লেষণ এবং সেই সঙ্গে নিম্নমুখী (বিয়ার) গতির সমর্থনকারী বিশেষজ্ঞদের 60%-ও, এই প্রত্যাশা করে যে, 1.1200-র প্রতিরোধ থেকে ধাক্কা খেয়ে এই জুটি আরও একবার 1.1025 অঞ্চলে তাদের অবলম্বন পরীক্ষা করবে। তাদের মতে, ইউরোর 1.1200-র দর (কোট) এখনও সমর্থিত তার প্রধান কারণ হল রক্ষণশীল সম্পদগুলোতে আগ্রহ বৃদ্ধি। তবে, ভঙ্গুর ভারসাম্য (ফ্র্যাজাইল ব্যালেন্স), সেই সঙ্গে ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে আসা (Brexit) ও ইতালীতে রাজনৈতিক পরিস্থিতির নতুন করে অবনতি, ইউরোজনে GDP-তে বৃদ্ধির দুর্বল ডেটার দ্বারা আরও বিক্ষুদ্ধ হতে পারে, যা আগামি 14 আগস্ট, বুধবার প্রকাশিত হতে চলেছে।
    রাজ্যের বাজেট ঘাটতিতে হ্রাস এবং USA-তে মুদ্রাস্ফীতির ইতিবাচক ডেটাও ডলারকে শক্তিশারী করায় ভূমিকা নিতে পারে। এই সংখ্যাগুলি আসলে কী হবে তা যথাক্রমে আগামি 12ই আগস্ট, সোমবার ও 14ই আগস্ট, বুধবার[CM1]  ঘোষণা করা হবে।
    বাকি 40% বিশ্লেষক এই জুটির বৃদ্ধি 1.1275-1.1345 অঞ্চলে যাওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন। তাদের পূর্বাভাসের ভিত্তি মন্দা ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সূদের হার আরও কমার সম্ভাবনাগুলোর উপর দাঁড়িয়ে। এইভাবে, ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল আগামি 12 মাসের মধ্যে 33.6% হারে (এক বছর আগে যেটা ছিল 18.3%) মন্দার সম্ভাবনা অনুমান করছে, যা 2011-র পর থেকে সর্বোচ্চ। আর হারে একটা পরিবর্তনের পূর্বানুমান করে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন যে, 2019-এর শেষের দিকে সেটা 2.25% থেকে পড়ে 1.85%-এ এসে দাঁড়াবে;

  • GBP/USD। 13ই আগস্ট, মঙ্গলবার সকালে, UK শ্রম বাজারের ডেটার কিছুটা অংশ উপস্থাপন করবে যা সবচেয়ে ভাল কিছু হলে নিরপেক্ষ এবং সবচেয়ে খারাপ কিছু হলে দুর্বল হবে বলে আশা করা যায়। মুদ্রাস্ফীতির ক্ষেত্রে, এর নির্দেশকগুলো, যেগুলো 14ই আগস্টে প্রকাশিত হবে, সম্ভবত একই স্তরে থেকে যেতে পারে। সাধারণভাবে, বিশেষজ্ঞেরা এই সপ্তাহে কোন উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আশা করছেন না, আর তাই তাদের পূর্বাভাসকে নিরপেক্ষ হিসেবে শ্রেণিভুক্ত করা যেতে পারে।
    প্রযুক্তিগত বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে, ট্রেন্ড ইন্ডিকেটরগুলোর 100% এবং H4 এবং D1-এর উপর বেশিরভাগ অসিলেটরগুলো লাল রংয়ে রাঙানো। গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণও এই জুটির ধারাবাহিক পতনের ইঙ্গিত দেয়। অধিকন্তু, ইতিমধ্যে অসিলেটরগুলোর 25%-ই এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত বিক্রির ইঙ্গিত দিয়েছে, যা বিপরীতমুখী ট্রেন্ডের এবং আশু সংশোধনের একটা প্রখর সংকেত।
    সমর্থনের স্তরসমূহ (সাপোর্ট লেভেল): জানুয়ারী 2017-র নিম্ন – 1.1985 এবং অক্টোবর 2016-র নিম্ন – 1.1945। প্রতিরোধের স্তরসমূহ (রেজিস্ট্যান্স লেভেল): 1.2210, 1.2415, 1.2525;
  • USD/JPY। যেমনটা ইতিমধ্যেই উল্লেখ করা হয়েছে, নিজেদের মূলধনকে শান্ত আশ্রয়ে রাখার বিনিয়োগকারীদের আকাঙ্খা প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে। এবং বিশ্লেষকদের 35%-ই এ ব্যাপারে নিশ্চিত যে, জাপানি মুদ্রা সেই আশ্রয়ের ভূমিকা ধারাবাহিকভাবে পালন করেই যাবে, আর তাই এই জুটির পতন 3রা জানুয়ারী, 2019-এর নিম্ন স্তর 105.00 অবধি চলতে থাকবে। পরবর্তী অবলম্বন হল মার্চ, 2018-র নিম্ন স্তর 104.60। H4-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে বিশ্লেষণ, সেই সঙ্গে H4 ও D1-এর উপর 85% অসিলেটর এবং 100% ট্রেন্ড ইন্ডিকেটর এই একই পরিস্থিতির সঙ্গে একমত।
    বিশেষজ্ঞদের 30% কোন পূর্বাভাস দিতে পারেননি, এবং বাকি 35%, সেই সঙ্গে D1-এর উপর করা গ্রাফিক্স সহযোগে বিশ্লেষণ, ট্রেন্ড ঘুরে গিয়ে ঊর্ধ্বমুখী হবে এবং এই জুটি 107.00-108.00 অঞ্চলে উন্নীত হবে এমন মত পোষণ করেছে। এই ধরনের একটা অবস্থা অসিলেটরগুলোর 15%-ও সমর্থন করে, এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত বিক্রি হওয়ার সংকেত দিয়ে।
    এটা খেয়াল রাখা উচিৎ যে, সাপ্তাহিক থেকে মধ্যমেয়াদি (মিড-টার্ম) পূর্বাভাসে চলে যাওয়ায় বিশেষজ্ঞদের মধ্যে ঊর্ধ্বমুখী গতির (বুল) সমর্থকদের সংখ্যা দ্রুত হারে বেড়েছে, 35% থেকে 65%-এ, এবং 109.00-র উচ্চতাকে প্রধান লক্ষ্য বলা হয়েছে;  
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। টম লি এ ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী যে, ইয়েন ও সোনার সাথে সাথে একটি নিরাপদ আশ্রয় হয়ে ওঠায় বিটকয়েন $20,000-এ উন্নীত হতে সমর্থ হবে। একইরকম দৃষ্টিভঙ্গি মর্গ্যান ক্রিক-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা অ্যান্থনি পম্পিলানোকেও প্রকাশ করছেন। তার মতে, ডলারের ঝুঁকিকে রক্ষাকবচ দিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক অদূর ভবিষ্যতে ব্যাপক হারে বিটকয়েন কেনা শুরু করে দেবে, যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যেকার টানাপোড়েনের প্রেক্ষাপটে প্রতীত হয়েছিল। নিয়ামকদের মধ্যে সূদের হার কমানোর “মহামারী” নিশ্চিতভাবে প্রথম ক্রিপ্টোকারেন্সির দরে প্রভাব ফেলবে। বিটকয়েনের আরেকটা শক্তি হল এর অনুমিত নির্গমন এবং সীমিত সরবরাহ।
    তিন মাসের মধ্যে রেফারেন্স ক্রিপ্টোকারেন্সি 93% বৃদ্ধি পেয়েছে এবং এখন এর আশু কর্তব্য হল জুন, 2019-এর $14,000-এর উচ্চতার অঞ্চলে পৌঁছানো। বিশেষজ্ঞদের মধ্যে 70% এই পূর্বাভাসের সঙ্গে একমত, যদিও, তাদের মতে, তা আগস্টের শেষের দিকে হতে পারে। পরের সপ্তাহে, এই জুটি হয়ত ধারাবাহিকভাবে $12,000 হরাইজন বরাবার গতি বজায় রেখে চলতে পারে।

 

রোমান বুটকো, NordFX

 

দ্রষ্টব্য: এই বিষয়বস্তুটিকে বিনিয়োগের সুপারিশ অথবা আর্থিক বাজারগুলিতে কাজ করার দিকনির্দেশ হিসেবে বিবেচনা করা উচিৎ হবে না: এগুলির উদ্দেশ্য শুধুমাত্র তথ্য সরবরাহ করা। আর্থিক বাজারগুলিতে কেনা-বেচা করা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ এবং তা লগ্নীকৃত অর্থ হারানোর কারণ হতে পারে। 


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)