অগাস্ট 26, 2018

-প্রথমে, গত সপ্তাহের ঘটনাবলীর বিষয়ে পর্যালোচনা:

  • EUR/USD মুদ্রাজুড়ি। যেমন আশা করা হয়েছিল, ইউএস-চীন আলোচনা কিছু স্পষ্ট দিশা দেখায় নিঃ PRC বাণিজ্য মন্ত্রালয় থেকে কেবলমাত্র খবর পাওয়া গিয়েছে যে আলোচনা অকপট এবং সদর্থক হয়েছে। এই সব কথার অর্থ হল কোন সুনির্দিষ্ট ফলাফলের অনুপস্থিতি। ফেড সভাপতি জেরোম পাওয়ালও বিপ্লববাদী নন এবং ডলারের দাম মাত্র 30 পয়েন্ট কম পড়েছে।
    সাধারণভাবে বলতে গেলে, সারা সপ্তাহ ধরে, ইউরোর দাম প্রায় 200 পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়েছে, যা মূলত ইউএস রাষ্ট্রপতি এবং তার পারিপার্শ্বিক গুরুতর সমস্যার কারণে হয়েছে, যার ফলে তার সহকারীদের জেল পর্যন্ত হতে পারে এবং ট্রাম্পের বিরুদ্ধেও ফৌজদারী মামলাও হতে পারে। EU থেকে আগত গাড়ির উপর শুল্ক বৃদ্ধির প্রস্তাব মুলতুবি রাখাও ইউরোর পক্ষে গিয়েছে। এর ফলে, এই মুদ্রাজুড়ি লেনদেনের সপ্তাহটি সেইভাবেই শেষ করেছে যা 45% বিশেষজ্ঞরা আশা করেছিলেন 1.1622–এ হবে, আর প্রতিরোধক স্তর 1.1630-এর কাছাকাছি;
  • GBP/USD মুদ্রাজুড়ি। ইউরোকে অনুসরণ করে ব্রিটিশ পাউণ্ডও ডলারের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়ে মাঝারি-মেয়াদের নিম্নমুখী প্রবণতার মাঝামাঝি পৌঁছিয়ে গিয়েছিল, যা গত বসন্তকালে শুরু হয়েছিল। এই মুদ্রাজুড়ি আগস্টের শুরুর সীমা ছুঁয়েছিল এবং পাঁচ-দিনের লেনদেনের সপ্তাহটি 1.2845-এ শেষ করেছিল;   
  • USD/JPY মুদ্রাজুড়ি। মনে করুন তো 75% বিশেষজ্ঞ পূর্বাভাস করেছিলেন যে এই মুদ্রাজুড়ির 109.00-এর অঞ্চলে পতন হবে, এবং 25% বিশেষজ্ঞ এই মুদ্রাজুড়ির 111.00-112.00-এর স্তরে ফেরার পূর্বাভাস দিয়েছিলেন। এই মুদ্রাজুড়ি, সংখ্যাগরিষ্ঠদের প্রত্যাশানুযায়ী, প্রকৃতই নীচের দিকে নেমেছিল এবং মঙ্গলবার, 21শে আগস্টে এই জুড়ি 109.75-এর স্তরে নেমে এসেছিল। তবে, এই পতন থেমে গিয়েছিল, এবং বাকি 25% বিশেষজ্ঞদের পূর্বাভাস বাস্তবায়িত হয়েছিলঃ এই মুদ্রাজুড়ি 111.00-112.00-এর অঞ্চলে উঠে 111.50-এর উচ্চতায় পৌঁছিয়েছিল। চূড়ান্ত স্থিরতা একটু নীচের দিকে ছিল – 111.25-এর আশেপাশে;
  • ক্রিপ্টোমুদ্রা। এই সপ্তাহের মূল খারাপ খবর হল যে ইউএস সিকিউরিটিস এবং এক্সচেঞ্জ কমিশন (SEC)  Bitcoin-কেন্দ্রিক বিনিয়োগ তহবিল (Bitcoin-ETF) শুরু করার আরো পাঁচটি (মোট নয়টি) আবেদনপত্র নাকচ করে দিয়েছে। মূল কারণটি একই – ক্রিপ্টো-এক্সচেঞ্জে জালিয়াতি এবং মূল্যের কারসাজি। ভাল খবরটি হল যে SEC আবার তার সিদ্ধান্তের পুর্নবিবেচনা করতে পারে। তেজিবাজারও এই খবরে উল্লসিত হয়েছে যে ব্যাংক অফ্ অস্ট্রেলিয়া দ্বারা বিশ্বের প্রথম ব্লকচেইন-ভিত্তিক বণ্ডগুলি বিনিয়োগকারীদের দ্বারা আগ্রাসীভাবে ক্রয় করা হয়েছে।
    ক্রিপ্টোবাজারের মূলধনী পরিমাণের কথা বলতে গেলে, এটি সামান্য পরিমাণে বৃদ্ধি পেয়েছে এবং 210 বিলিয়ন ডলারের সামান্য উপরে উঠেছে। 
    এই পরিস্থিতিতে, BTC/USD ক্রিপ্টোজুড়ির উত্থান বরং এক সংকীর্ণপ্রান্তের 6,230-6,650$-এর পরিসরে প্রায় সবসময় হয়ে চলেছে। যেমন আমরা ধারণা করেছিলাম, এটি bitcoin-এর পক্ষে 6,830$-এর প্রতিরোধক স্তরের উপরে স্থিত হওয়া বেশ কঠিন হবে। 22শে আগস্টের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছিলঃ 6,885$-এ পৌঁছিয়ে, এই ক্রিপ্টোজুড়ি দ্রুত ঘুরে গিয়েছিল এবং সাপ্তাহিক পরিসরে ফিরে এল। পরবর্তী প্রচেষ্টা শুক্রবার রাতে ঘটেছিল, যখন রুগ্ন বাজার আরো রুগ্ন হয়ে পড়েছিল।
    6,230$-এর সহায়ক স্তরের ভাঙ্গনে ব্যাঘাত ঘটেছিল এই কারণে যে এখন ইতিমধ্যেই বেশীরভাগ লেনদেনকারীরা পরিশোধের শেষ কাজটিতেই ব্যস্ত রয়েছেন। এবং 6,000-6,100$-এর অঞ্চলের নীচে যদি পতন হয়, লেনদেন করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়বে।
    Litecoin (LTH), ripple (XRP) এবং অনেক বৃহত্ ক্রিপ্টোমুদ্রা নীরসভাবে bitcoin-এর পথ অনুসরণ করেছে। কিন্তু Ethereum (ETH) আবারও একবার নেতিবাচক সক্রিয়তা প্রদর্শন করে সপ্তাহ জুড়ে প্রায় 15% মূল্য খুঁইয়েছে।

 

-আসন্ন সপ্তাহের পূর্বাভাসের বিষয়ে, অনেক সংখ্যক বিশ্লেষকদের মতামতের সাথে সাথে প্রাযুক্তিক ও রৈখিক বিশ্লেষণের বিভিন্ন পদ্ধতির ভিত্তিতে কৃত পূর্বাভাসগুলিকে সংক্ষিপ্ত করে আমরা নিম্মলিখিত বক্তব্য রাখছিঃ

  • EUR/USD মুদ্রাজুড়ি। ইউএস-চীনের আলোচনায় কোন ফলাফল প্রাপ্ত না হওয়া, রাষ্ট্রপতি ট্রাম্পের সম্ভাব্য অপসারণ। ফেডারেল রিজার্ভের প্রধানের বিরুদ্ধে ইউএস রাষ্ট্রপতির আক্রমণও এর সাথে যুক্ত করা যেতে পারে। ট্রাম্পের অনুগ্রহলাভে ফেডারেল প্রধানের বঞ্চিত হবার কারণ হল অত্যাধিক আঁটোসাঁটো আর্থিক নীতি এবং ঋণদানের হারের বৃদ্ধি। এইসব কিছুই এখনো বাজারে অস্থিরতা তৈরী করেছে, যার ফলে বিশেষজ্ঞদের মতামত নিম্নলিখিতভাবে বিভক্ত হয়ে পড়েছেঃ
    এদের 45%, বেশীরভাগ দোদুল্যমান সূচক এবং H4–এর রৈখিক বিশ্লেষণের সহায়তায়, ডলারের আরো দুর্বল হবার এবং এই মুদ্রাজুড়ির 1.1630 -1.1750-এর অঞ্চলে স্থানান্তরের পক্ষে মত প্রকাশ করেছেন। পরবর্তী প্রতিরোধক স্তর হবে 1.1840;
    30% বিশ্লেষক এখনো ডলারের উপর বিশ্বাস রাখছেন এবং আশা করছেন যে এই মুদ্রাজুড়ি মধ্য-আগস্টের নীচের দিকে ফিরে আসবে। নিকটতম সহায়ক স্তর হবে 1.1430, লক্ষ্য হবে 1.1300। D1-তে রৈখিক বিশ্লেষণ এবং 15% দোদুল্যমান সূচক ইঙ্গিত দিচ্ছে যে আমেরিকান মুদ্রার অধিক ক্রয় হয়েছে, যা এই বিশ্লেষকদের সমর্থন যোগাচ্ছে; 
    এবং, পরিশেষে, বাকি 25% বিশেষজ্ঞরা এই পরিস্থিতিতে কোন সিদ্ধান্ত নিতে অপারগ হয়েছেন। যদি আমরা দীর্ঘতর-মেয়াদের পূর্বাভাসের দিকে যাই তো 60%-এর বেশী বিশেষজ্ঞরা ডলারের প্রতি পছন্দ জাহির করেছেন। এইভাবে, উদাহরণস্বরূপ, যেখানে EU চিন্তা করছে আর্থিক নীতিকে উদ্দীপ্ত করা জারি রাখা ঠিক হবে কি না, জেপি মরগ্যানের বিশ্লেষকগণ ইউরো/ডলারের হারকে বছরের শেষে 1.1000-1.1200-এর স্তরে থাকার পূর্বাভাস করছেন। কারণগুলি একই রয়েছেঃ ব্রেক্সিট, ইতালী এবং তুরস্কর সাথে সাথে ইউরোপীয়ান ইউনিয়নে অর্ন্তভু্ক্ত কয়েকটি দেশ। তবে, জেপি মরগ্যানের বিশেষজ্ঞরা ইউরোপীয়ান মুদ্রার পরে  1.1900-এর স্তরে উত্থানের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না, কিন্তু এটি 2019-এর বসন্তকালের পূর্বে ঘটবে না;
  • GBP/USD মুদ্রাজুড়ি। রৈখিক বিশ্লেষণ অনুসারে, এই মুদ্রাজুড়ির ভবিষ্যত দেখতে এরকম হবেঃ প্রথমে নিম্নগামী চ্যানেলের (1.3000-1.3080-এর অঞ্চল) উচ্চতর সীমায় বৃদ্ধি, তারপরে সজোরে ঘুরে দাড়ানো এবং প্রথমে 1.2660-এর সহায়ক স্তরে পতন, আর তারপরে আরো নেমে গিয়ে 1.2585-এর স্তরে পৌঁছানো। সূচকদের হিসাবে, তাদের মধ্যে সম্পূর্ণ বিভ্রান্তি রয়েছে। কেউ কেউ সংকেত দিচ্ছে যে এই মুদ্রাজুড়ির অধিক ক্রয় হয়েছে, কেউ বলছে যে অধিত বিক্রয় হয়েছে, কেউ লাল রং দেখাচ্ছে তো কেউ সবুজ বা নিরপেক্ষ ধূসর রং। বিশেষজ্ঞদের মধ্যেও একই বিভ্রান্তি লক্ষ্য করা হয়েছে। তবে, যখন আমরা শরতকালের পূর্বাভাসের দিকে তাকাই, ছবিটা আরো স্পষ্ট হয় – এখানে ইতিমধ্যেই 65% বিশ্লেষক এই মুদ্রাজুড়ির বৃদ্ধির কথা বলছেন। তবে, লক্ষ্যগুলি এখনও বরং ভাসাভাসা – 1.3100 থেকে 1.3500 অবধি;  
  • USD/JPY মুদ্রাজুড়ি। কম মুদ্রাস্ফীতির কারণে ইয়েনের উপর চাপ এখনো বর্তমান, যা দুর্বল চাহিদার প্রতি ইঙ্গিত করছে এবং জিডিপি বৃদ্ধি ব্যাহত করছে। জাপানের সেন্ট্রাল ব্যাংকের প্রধান হারুহিকো কুরোদা আবারও একবার হারা-কিরি করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যদি মুদ্রাস্ফীতি 2%-এর লক্ষ্যে না পৌঁছায়। কিন্তু মূল্যের বৃদ্ধি এখনো অত্যন্ত কম এবং 1%-তেও পৌঁছায় নি। তবে, আশা করা যায় যে মি. কুরোদা তার প্রাণঘাতী প্রতিজ্ঞা পূরণ করার জন্য দৌড়াবেন না।
    ইতিমধ্যে, নিয়ন্ত্রক নেতিবাচক হার এবং ব্যাপক পরিমাণে পরিসম্পদ ক্রয়ের উদ্দীপক নীতি বজায় রেখেছেন। এই পরিপ্রেক্ষিতে, এমনকি ইউএস-চীনের বাণিজ্য যুদ্ধ এবং অন্যান্য ইউএস-এর সমস্যা থাকা সত্ত্বেও, ডলারের বৃদ্ধি জারি থাকতে পারে। অন্ততপক্ষে, 65% বিশেষজ্ঞরা 112.00, 113.50 এবং 114.70–কে লক্ষ্যমাত্রা ধরে এই ধারণা করছেন।
    35% বিশেষজ্ঞ, D1-তে রৈখিক বিশ্লেষণ এবং 20% দোদুল্যমান সূচকের দ্বারা এক বিকল্প দৃষ্টিভঙ্গি উপস্থাপিত হয়েছে যে এই মুদ্রাজুড়ির অধিক ক্রয় হয়েছে। যদি এই মন্দাবাজারের পরিস্থিতি বজায় থাকে, এই মুদ্রাজুড়ি 109.75-110.10-এর অঞ্চলে নেমে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। নিকটতম সহায়ক স্তর হবে 110.75;

  • ক্রিপ্টোমুদ্রা। bitcoin এবং বৃহত্ altcoins উভয়ই নীচের দিকে রয়েছে, এবং এই ক্ষেত্রে আত্মবিশ্বাসের সঙ্কট এবং ইতিবাচক খবরের অভাব এক শক্তিশালী তেজিবাজারের আবেগের সৃষ্টি প্রতিহত করছে। যদিও, যেমন আমরা পূর্বে উল্লেখ করেছিলাম, এই ধরণের খবরে কোন গুরুতর আর্থিক পরিণতির অনিবার্য পরিণতি বহন করে না এবং কেবলমাত্র পরবর্তী ফাটকার একটি কারণ হতে পারে।
    BTC/USD ক্রিপ্টোজুড়ির লক্ষ্যমাত্রা একই রয়েছে। তেজিবাজারের লক্ষ্য 6,850$-এর উচ্চতায় নিয়ে যাচ্ছে, আর তারপরে 7,760$-এ, মন্দাবাজারের দিক দিয়ে বলতে গেলে, এই ক্রিপ্টোজুড়িকে 6,230$-এর সহায়ক স্তর ভাঙ্গতে হবে, তারপরে 6,000$-এ এবং আরো নেমে গিয়ে 5,760$-এ পতন হতে হবে। এই সীমার নীচে পতন হলে তা ব্যাপকভাবে ক্রিপ্টোমুদ্রা বিক্রির এক দৃঢ় সংকেত হবে এবং সম্পূর্ণভাবে বাজার পতনের দিকে যাবে। এবং সাথে সাথে এটি সমস্ত অংশগ্রহণকারীদের স্বার্থের বিরুদ্ধে যাবে, এমনকি যারা বর্তমানে এর পতনেও লেনদেন করছেন। তাই, যদি ভাঙ্গন ঘটে, এটি স্বল্প-মেয়াদী হবে, এবং এই মুদ্রাজুড়ি আবারও 6,000$-এর অঞ্চলের উপরে ফিরে আসবে। যদিও কোন কোন বিশ্লেষক 4,700$-এর স্তরে পতনের পূর্বাভাস দিচ্ছেন। 
    আর বর্তমানে, দারুণ-আশাবাদী এবং দীর্ঘ-মেয়াদী বিনিয়োগকারীদের জন্য খবর রয়েছে, যারা সম্পূর্ণ বিজয়ী না হওয়া পর্যন্ত bitcoin-কে ধরে রাখতে প্রস্তুত আছেন। দি টেলিগ্রাম চ্যানেল হোয়াটস্ অন ক্রিপ্টো মন্তব্য করেছে যে প্রতিবারই ক্রিপ্টোমুদ্রার দর অর্ধেকে নেমে যাবার পরে, bitcoin-এর মূল্য কয়েকগুণ করে বৃদ্ধি পেয়েছে। 28শে নভেম্বর 2012 সালে ফিস্-এর প্রথম হ্রাসের পরে, BTC/USD ক্রিপ্টোজুড়ির 12$-এ লেনদেন হয়েছিল। 9ই জুলাই 2016-এ দ্বিতীয় হ্রাসের পরে দর হয়েছিল প্রায় 657$। তৃতীয় পতন (প্রতি ব্লকে 12.5 BTC থেকে 6.25 পর্যন্ত) 2020 সালের মাঝামাঝি হওয়া উচিত, এবং যদি পূর্বাভাস সঠিক হয়, 2023 সালের মধ্যে এই ক্রিপ্টোজুড়ির দর প্রতিটি মুদ্রায় 10 মিলিয়ন ডলারে পৌঁছাতে পারে। এটি সত্যি বা মিথ্যে যাই হোক না কেন আমরা তা "তাড়াতাড়ি" জানতে পারব – "মাত্র" পাঁচ বছরের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

 

-রোমান বাটকো, NordFX


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)