জুন 6, 2020

 

প্রথমে গত সপ্তাহের ঘটনাবলির পর্যালোচনা :

  • ইউরো/মার্কিন ডলার। 25 মে শুরু, ডলারের সঙ্গে ইউরো জুটি মূল্য টানা নয়টি দ্বিপ্রাহরিক সেশনে বৃদ্ধি পেয়েছিল, যা ডো জোনসের হিসেব অনুযায়ী, এপ্রিল 2011 থেকে ধারাবাহিক বিকাশের দীর্ঘতম পর্ব।
    ইসিবি-র সিদ্ধন্ত ইউরোপিয়ান কারেন্সিকে 20 মার্চের পর সর্বোচ্চ স্তরে উঠতে দিয়েছিল, পৌঁছেছিল 1.1385 উচ্চতায়। ক্রিস্টিন লাগার্ডের নেতৃত্বে সেন্ট্রাল ব্যাংক মার্কেটের সব প্রত্যাশাকে টপকে প্যানডেমিক ইমার্জেন্সি পারচেজ প্রোগ্রাম দ্বারা বৃদ্ধি পেয়েছিল 600 বিলিয়ন পাউন্ড থেকে 1.350 ট্রিলিয়ন পাউন্ডে। এই প্রোগ্রাম চলবে অন্তত জুন 2021 পর্যন্ত, এবং দখলীকৃত বন্ড থেকে গৃহীত প্রসিড অংশগ্রহণ করবে 2022-র শেষপর্যন্ত পুনর্বিনিয়োগ প্রক্রিয়ায়। ইসিবি এইসঙ্গে ঋণের ওপর বেঞ্চমার্ক সুদের হার রেখেছে শূন্যতে এবং ডিপোজিট হার -0.5 শতাংশে। এভাবে, গত সপ্তাহে ইসিবি ছিল একমাত্র প্রধান রেগুলেটর যে কোয়ান্টিটিভ ইজিং (কিউই) নীতি প্রমাণ করেছে, এর পাশাপাশি, কয়েকটি সেন্ট্রাল ব্যাংক এই নীতি চালিয়ে গেছে জুন মাসে।
    ক্রিস্টিন লাগার্ডে অনুযায়ী, কিউই জরুরি কর্মসূচির অবশ্যই একবারে দুটি সমস্যা সমাধান করা উচিত : কোভিড-19 অতিমারি থেকে উদ্ধার পেতে ইউরোজোন অর্থনীতিকে সাহায্য এবং বাজারের চাপ অতিক্রম করতে একটি স্তম্ভের মতো কাজ করা।
    এই সপ্তাহে প্রকাশিত ইউরো জোন আর্থিক রিপোর্টও ইউরোর পক্ষে কাজ করছে, তারা অধিকাংশ সময় আশাবাদী হয়েছে, এবং ব্যবসায়িক কার্যকলাপ ইন্ডিকেটররাও ঊর্ধ্বমুখে সংস্কারিত হয়েছে।
    ডলারের ক্ষেত্রে, এটা ডুবতে শুরু করেছিল আংশিকভাবে কারণ বিপজ্জনক সম্পদের প্রতি ক্রমবর্ধমান ঝোঁক। এবং এটা যদি ইউএস শ্রম বাজার থেকে পরিসংখ্যান দ্বারা সমর্থিত না হত, এই জোড়ার সবরকম সম্ভাব্যতা ছিল টানা দশদিন ক্যান্ডেল সবুজ রাখার। যদিও, এপ্রিলের 14.7 শতাংশের বিপরীতে মে মাসে বোকারির হার কমেছে, 13.3 শতাংশ, কৃষিক্ষেত্রের বাইরে (এনএফপি) বেশ কিছু নতুন কাজের উদ্ভব ঘটেছে, যার পরিমাণ +2.509K, গত মাসের তুলনায় প্রায় 21 মিলিয়ন হ্রাস (-20.678K)।
    এর ফলে ইউরো/মার্কিন ডলার জোড়া শেষপর্যন্ত সপ্তাহের শেষ কাজের দিনটি শেষ করেছিল রেড জোনে, থেমেছিল 1.1290 স্তরে।
  • জিবিপি/মার্কিন ডলার। জিবিপি/মার্কিন ডলার। টানা তৃতীয় সপ্তাহ ইউরোকে অনুসরণ করল ব্রিটিশ পাউন্ড। একটি ব্যবধান হল যে শুক্রবার, 5 জুনের শিখা এর তালিকায় সবুজ হয়েছিল। 18 মে 1.2075 থেকে শুরু করে জোড়াটি প্রথমে ভাঙে চ্যানেল 1.2165-1.2650-র নিম্নতম সীমা, রেজিস্ট্যান্স থেকে সাপোর্টে ঘোরে, তারপর এর ঊর্ধ্বসীমায় পৌঁছয় এবং আরও একটি লাফ দেয় নর্থে 5 জুনে, উচ্চতা হয় 1.2730 এবং তিন সপ্তাহে যোগ করেছিল 655 পয়েন্ট। এরপর আরেকটি সংশোধন হয় এবং জোড়াটি শেষপর্যন্ত থাকে 1.2665-এ।
  • মার্কিন ডলার/জেপিওয়াই। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-চীনের মতবিরোধের প্রেক্ষাপটে এই জোড়ার মানের প্রেক্ষিতে তুলনামূলকভাবে শান্ত, তিন সপ্তাহ, এটা গত পাঁচদিনে দ্রুত উঠে গেছে।
    গত মাসে হংকং ও ম্যাকাউতে জাতীয় নিরাপত্তা আইন প্রয়োগের অনুমোদন চীন দেওয়ার পর দুই দেশের সম্পর্কে অবনতি ঘটেছে। শেষ পদক্ষেপ ছিল ইউনাইটেড এয়ারলাইন্স ও ডেলটা এয়ার লাইন্সের উড়ানে চীনে নিষেধাজ্ঞা জারি করা। এর প্রতিক্রয়ায় 16 জুন থেকে ওয়াশিংটন চিনা উড়ানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে গোটা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে।
    ইউরো ও পাউন্ডের বিপরীতে, যার প্রেক্ষিতে ডলার নিজের অবস্থান হারিয়েছে, পাঁচ দিনে এটা ইয়েনের প্রেক্ষিতে 180 পয়েন্ট লাভ করেছে। জোড়াটির সর্বোচ্চ ফ্ল্যাকচুয়েশন ছিল 245 পয়েন্ট এবং 5 জুন, শুক্রবার এটা প্রায় প্রতীকী উচ্চতা 110.00-য় পৌঁছে গিয়েছিল। কিন্তু ধরে রাখতে পারেনি, জোড়াটি ট্রেডিং সেশন শেষ করে 109.60-এ।
  • বিশ্লেষণমূলক কোম্পানি সিফেরট্রেস-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, চুরি যাওয়া ক্রিপ্টো অ্যাসেট 2020-এর পাঁচ মাসে পৌঁছেছে 1.36 বিলিয়ন ডলারে, তথ্যজ্ঞাপক হয়েছে। একই সময়ে, সিফেরট্রেস খুঁজে পেয়েছে যে অবৈধ বিটকয়েন পাওয়ার প্রথম স্থান ... ফিনল্যান্ড। বিটকয়েনের 12 শতাংশ প্রবেশ করেছে উত্তর ইউরোপের ছোট্ট, শান্ত দেশে বেআইনি পথে। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে রাশিয়া, 5.23 শতাংশ, এরপর ইংলিশ এক্সচেঞ্জগুলি, যার ইন্ডিকেটর হল .69 শতাংশ। জার্মান, জাপানি ও মার্কিন এক্সচেঞ্জে বেআইনিভাবে রয়েছে .1 শতাংশেরও কম ক্রিপ্টোকারেন্সি।
    এখন পূর্ববর্তী পর্বের আলোকপাত। প্রথমে, 94504 বিটিসি-তে 94 বিলিয়ন ডলার ট্রান্সফারের খবর শুনে ক্রিপ্টো সম্প্রদায় ঝাঁকুনি খেয়েছিল। সঙ্গে সঙ্গে এত বেশি সংখ্যায় বিটকয়েন ট্রান্সফার বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়। অধিকাংশ বিশ্লেষকই এই ঘটনার সঙ্গে সংযোগ ঘটান বাকট প্ল্যাটফর্মে বিটকয়েনের তাৎক্ষণিক লঞ্চিঙের।
    এই সপ্তাহের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা ছিল, বিটকয়েন ভেঙেছে 10000 ডলারের দিগন্ত। মঙ্গলবার রাতে, 2 জুন, মূল ক্রিপ্টোকারেন্সির মূ্ল্য পৌঁছেছিল 10400 ডলারে, ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি থেকে এটাই সর্বোচ্চ। যদিও বুলের আনন্দ ছিল স্বল্পস্থায়ী, আমেরিকান সেশন শুরুতে, বিটকয়েন পড়ে যায়, কয়েক মিনিটের মধ্যে চলে আসে 9500 ডলারের নীচে এবং এমনকি একটি নির্দিষ্ট বিন্দুতে স্পর্শ করে 9130 ডলার মার্ক। মাত্র একটি বিটমেক্স এক্সচেঞ্জ কয়েক মিনিটের মধ্যে 150 মিলিয়ন ডলার অপসারণ রেকর্ড করেছে। কিছু পর্যবেক্ষক লক্ষ্য করেছেন যে সেই মুহূর্তে বার্ট সিম্পসন প্যাটার্ন রূপ নিয়েছিল বিডিসি/মার্কিন ডলার চার্টে।
    এরপর, মূল্য ধীরে ধীরে উপরে উঠেছে 9500-9850 অঞ্চলে, যেখানে এটা ছিল শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত, দেখিয়েছিল 7 দিনের বৃদ্ধি, 3.35 শতাংশ।
    ক্রিপ্টোকারেন্সির মোট মার্কেট ক্যাপিটালাইজেশনের চার্ট 2 জুনের সিম্পসন প্যাটার্নের মতোই ছিল, ক্যাপিটালাইজেশন পৌঁছেছিল 285 বিলিয়ন ডলারে, তারপর 6 শতাংশ পতন ঘটে। এই লেখার সময় পর্যন্ত, ইন্ডিকেটর রয়েছে 275 বিলিয়ন ডলারের চারপাশে, যা সাত দিন আগে এর মূল্যের চেয়ে 3.8 শতাংশ বেশি। ক্রিপ্টো ফিয়ার ও গ্রিক ইনডেক্স এখনও নিরপেক্ষ অঞ্চলের মাঝে রয়েছে : যদি 29 মে-তে এর মূল্য ছিল 48, সম্ভাব্য 100-র মধ্যে এটা 5 জুনে হয় 53।
    অধিকাংশ প্রধান অল্টকয়েন সাধারণভাবে বিটিসি /মার্কিন ডলারকে অনুসরণ করেছে। কিন্তু যদি রিপল (এক্সআরপি/মার্কিন ডলার) দেখায় বিটকয়েনের - 3.24% মতো বিকাশ, লাইটকয়েন ও ইথেরিয়াম উল্লেখযোগ্যভাবে ম্লান করেছে রেফারেন্স ক্রিপ্টোকারেন্সিকে : এলটিসি/মার্কিন ডলার - +6.6%, ইটিএইচ/মার্কিন ডলার - +10.9% ।

 

আগামী সপ্তাহের অনুমানের ক্ষেত্রে, বেশকিছু সংখ্যক বিশেষজ্ঞের মতামতের সংক্ষেপের পাশাপাশি টেকনিক্যাল ও গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণের বিভিন্ন পদ্ধতির ভিত্তিতে আমরা বলতে পারি :

  • ইউরো/এসডি। ইউরোর দুসপ্তাহের আশাব্যঞ্জক বিকাশ সত্ত্বেও, ঊর্ধ্ব প্রবণতার ধারাবাহিকতা নিয়ে প্রশ্ন আছে। একদিকে, এবিএন আমরো, জেপি মর্গ্যান, ব্যাংক পিকেট অ্যান্ড সি এবং নর্ডিয়ার মতো প্রথম সারির বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলির বিশ্লেষকদের বিশ্বাস যে সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বরে ইসিবি সম্প্রসারণ করবে কিউই কারণ হল সরকারি অনাদায়ীর বিকাশ যা মুছে যাওয়া দরকার। কিন্তু অন্যদিকে, ইউরোপিয়ান সেন্ট্রাল ব্যাংক এবং জার্মান বুন্দেসব্যাংকের ফারাক অদৃশ্য হয়নি। সেজন্য, যদিও ক্রিস্টিন ল্যাগার্ড ঘোষণা করেছেন যে গর্ভনিং কাউন্সিল দ্বারা সর্বজনীনভাবে বৃদ্ধপ্রাপ্ত কিউই পরিমাণ গ্রহণের সিদ্ধান্ত ছিল, ফিনান্সিয়াল টাইমস, বুন্দেসব্যাংকের প্রধন জেন্স উইয়েইমানের তাঁকে সতর্ক করেছিলেন যে যদি এটা ধারাবাহিক হয়, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের আইন ভঙ্গের জন্য ইসিবি অভিযুক্ত হতে পারে যা সরকারের নগদ ফিনান্সিং কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করে।
    এ ছাড়া, ইউরো বৃদ্ধি বাধাপ্রাপ্ত হবে ইউরোজোন জিডিপি হ্রাসের প্রত্যাশায়। ইসিবি অনুমান অনুযায়ী, এবছর ইউরোজোন অর্থনীতি হ্রাস পাবে 8.7 শতাংশ (করোনাভাইরাস অতিমারির দ্বিতীয় ঢেউ এলে 12.7 শতাংশ), এবং পরের বছর এর বৃদ্ধি ঘটবে মাত্র 5.2 শতাংশ। কিন্তু মার্কিন অর্থনীতি, ওয়াল স্ট্রিট বিশেষজ্ঞদের মতে, 2020-তে মাত্র 6.6 শতাংশ হ্রাস হবে এবং 2021-এ পুনরুদ্ধার হবে 5 শতাংশ।
    এই মুহূর্তের জন্য, বিশ্লেষকদের 65 শতাংশের বিশ্বাস যে ঝুঁকির প্রবণতার পতন ঘটবে, প্রতিরক্ষামূলক সম্পদ হিসেবে ডলারে আকর্ষণ বেঁচে থাকবে এবং ইউরো মার্কিন ডলার জোড়া দক্ষিণ ঘুরবে 1.1000-1.1100 অঞ্চলে। পরের সাপোর্ট হয় 1.0885। H4-এ গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণ এবং অসিলেটরদের 15 শতাংশ সংকেত দিয়েছেন এই জোড়া H4-এ বেশি বিক্রীত এবং ঘটনার এই বিকাশে D1 সম্পূর্ণ সহমত।
    বাকি 33 শতাংশ বিশেষজ্ঞের মতে, বুলের এখনও যথেষ্ট শক্তি আছে এই জোড়াকে 1.1400 উচ্চতায় পৌঁছে দেবার এবং যদি সফল হয়, মার্চের উচ্চতা 1.1500 টার্গেট করবে।
    এই সপ্তাহের আসন্ন ঘটনা সম্পর্কে আপনার মনোযোগ দেওয়া উচিত : সোমবার, 8 জুন – জার্মান ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রডাকশন ডেটায়, মঙ্গলবার, 9 জুন – ইউরোজোন জিডিপিতে, বুধবার 10 জুন – মার্কিন কনজিউমার মার্কেটের পরিসংখ্যানে এবং বৃহস্পতিবার, 11 জুন – মার্কিন বেকারি তথ্যে। এইসঙ্গে, 10 জুন, ইউএস ফেডারেল রিজার্ভের একটি বৈঠক হবে যেখানে সুদের হারের সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে। এই বৈঠকের পর ফেড ম্যানেজমেন্টের সাংবাদিক সম্মেলন হবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

  • জিবিপি/মার্কিন ডলার। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের প্রধান মধ্যস্থতাকারী মাইকেল বার্নিয়ার 5 জুন যেমন বলেছেন, যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের আরেক রাউন্ড কথাবার্তা খুব একটা তাৎপর্যপূর্ণ গতি আনবে না। এটা সম্ভব ছিল না কোনো ফিশারি ইস্যুতে সম্মত হওয়া অথবা বাণিজ্যে মুক্ত ও সমান প্রতিযোগিতার সমস্যায় সম্মত হওয়া। এর ফলে, বার্নিয়ারের মতে, পক্ষগুলি থেকে গেল ‘লক্ষ্য থেকে দূরে’ সামাজিক, পারিবেশিক এবং করের প্রেক্ষিতে, যার ওপর দুপক্ষের পার্টনারশিপ এবং ভবিষ্যতের স্থায়ী উন্নয়ন নির্ভর করে।
    ব্রেক্সিট পুনরুত্থান পর্বের সম্প্রসারণে ব্রিটনদের প্রত্যাখ্যানও খারাপ, এমনকি ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এটি এক বছর বা দুবছর বাড়াতে চেয়েছিল সমঝোতার জন্য আরও বেশি সময়ে দিয়ে। ‘কিন্তু যদি এরকম সম্প্রসারণ নিয়ে যদি কোনো যৌথ সিদ্ধান্ত না হয়, যুক্তরাজ্য সাত মাসের মধ্যে একক বাজার এবং কাস্টমস ইউনিয়ন ছেড়ে দেবে, এবছরের 31 ডিসেম্বর’, বলেছেন মাইকেল বার্নিয়ার।
    ছেড়ে যুক্তরাজ্যের এরকম অসক্রিয়তা এর এমন এক আর্থিক সমস্যার প্রেক্ষাপটে যার জন্য এবার কোনো বিশেষজ্ঞই বুলিশ শক্তির পক্ষে দাঁড়ায়নি। তাদের অর্ধেক সাইডওয়ে প্রবণতার পক্ষে বলেছেন আর আরেক অর্ধেক মত দিয়েছেন আরও শক্তিশালী ডলার এবং পাউন্ডের পতনের পক্ষে।
    এটা পরিষ্কার যে ট্রেন্ড ইন্ডিকেটরদের 100 শতাংশ অনুমান করার সময় ছিল সবুজ রঙে, কিন্তু অসিলেটরদের উভয় সময়সীমায় 15 শতাংশ সংকেত দিয়েছে এই জোড়াটির অতিরিক্ত বিক্রির, যা এর প্রবণতা নিম্নমুখী হওয়ার শক্তিশালী সংকেত।
    H4-এ গ্রাফিক বিশ্লেষণও দক্ষিণের দিকে, এবং D1-এ এটি আনুভূমিক 1.2570-1.2845-র মাঝে। সাপোর্ট লেভেল 1.2465, 1.2365 এবং 1.2160, রেজিস্ট্যান্স 1.2725, 1.2845  এবং 1.2950।
    ম্যাক্রোইকোনমিক পরিসংখ্যান প্রকাশের ক্ষেত্রে, ডলারের জন্য উপযুক্ত যোগ করে, গ্রেট ব্রিটেনের জিডিপি ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রডাকশনের সুদের হারের তথ্য প্রকাশ পাবে শুক্রবার, 12 জুন।
  • মার্কিন ডলার/জেপিওয়াই। ইন্ডিকেটরের রিডিং জিবিপি মার্কিন ডলার জোড়ার জন্য একেবারে সমান : H4 এবং D1 উভয়েই, 100 শতাংশ ট্রেন্ড ইন্ডিকেটর এবং 85 শতাংশ অসিলেটর রয়েছে সবুজ দিকে। বাকি 15 শতাংশ গিয়েছে রেড সাইডে এবং সিগন্যালে যে ডলার অতিরিক্ত বিক্রীত।
    বিশ্লেষকদের মধ্যে, সবকিছু এত স্পষ্ট নয়। তাদের মাত্র 30 শতাংশ 110.00-এর ওপরে জোড়াটির বিকাশ এবং জমাট বাঁধার পক্ষে মত দিয়েছেন এবং 70 শতাংশকে সমর্থন করা হয়েছে H4-এ গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণ দ্বারা, যারা অপেক্ষা করছেন এর 107.00-108.00 অঞ্চলে ফেরার জন্য।
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। তাদের ক্রিয়াকলাপ সমর্থন করতে, অনেক মাইনার বাধ্য হয়েছেন তাঁদের ক্রিপ্টো সম্পদ বিক্রি করতে হাভিঙের পর। উপরন্তু তারা অনেক এবং দ্রুত বিক্রি করেছেন যা তাঁরা করেছেন মাইন-এ, যা বিটকয়েনে গুরুতর উদ্বেগ ফেলেছে।
    যদিও, জেপি মর্গ্যান স্ট্র্যাটেজিস্ট নিকোলা, পানিগার্টজোগলৌর মতে, হাভিঙের কারণে, অভ্যন্তরীণ অথবা মৌলিকভাবে বিটকয়েনের মুল্য প্রকৃতপক্ষে দ্বিগুণ হয়েছে এবং এটা অবশেষে ক্রিপ্টোকারেন্সির বাজার মূল্যের লাইনে এসেছে। জেপি মর্গ্যানের থেকে মডেল বিটকয়েনকে একটি পণ্য হিসেবে বিবেচনা করে, এর উৎপাদনে প্রান্তিক খরচ, সরঞ্জামের প্রসেসিং পাওয়ার এবং বিদ্যুতের খরচ এর অ্যাকাউন্টে হিসেব করা হয়েছে।
    বিটিসি-র মূল্যের ওপর একটি ইতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে তেলের মূল্যে, যা নিম্নতর বিদ্যুৎ মূল্যে যাবে। উদাহরণ স্বরূপ, ক্রিপ্টো বিশ্লেষক আন্দ্রে আন্তোনোপোলাস উল্লেখ করেছেন মার্কিন অয়েল স্টেট টেক্সাসের, যেখানে বৃহত্তম নতুন মাইনিং অপারেটররা থিতু হয়েছেন, ‘আমি মনে করি না যে এটা কাকতালীয়’, তাঁর ইউটিউব চ্যানেলে এটা বলেছেন তিনি।
    জাপানি ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেঞ্জ এফএক্সকয়েনের সিনিয়র স্ট্র্যাটেজিস্ট ইয়াসুও মাতসুদার মতে, চিনা জাতীয় কারেন্সির দুর্বলতাও বিটকয়েনে প্রভাব ফেলতে পারে। ‘চীন সবসময় কঠোরভাবে অর্থনীতি নিয়ন্ত্রিত করে, কিন্তু করোনা ভাইরাস মহামারি অর্থনীতির গতি নীচের দিকে নিয়ে গেছে। বিশেষ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আর্থিক নিষেধাজ্ঞা জারি করার পর থেকে। এখন দেশের নাগরিকদের পিআরসি-র বাইরে অ্যাসেট উইথড্র করতে একটি ইনসেনটিভ আছে, এবং বিটিসি ক্রয় এখনও আরও জনপ্রিয় হয়েছে, যা বিটিসি মূল্য বৃ্দ্ধিতে উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলবে।’
    সামগ্রিকভাবে, বিনিয়োগকারীদের জন্য পরিস্থিতি এখন বেশ ইতিবাচক। বলেছে গ্ল্যাসনোড অ্যানালিটিকাল সেন্টার, বিটকয়েনের যে 79 শতাংশ সার্কুলেট হচ্ছে তা সবই লাভযোগ্য। তাদের মূল্য গত লেনদেনের সময় থেকে এখন উঁচুতে। এইসঙ্গে, গ্লাসনোড সম্প্রতি রিপোর্ট করেছে যে বিটিসি-র 60 শতাংশের বেশি এবছর চলাচল করেনি, এবং শেষবার এরকম একই সংকেত রেকর্ড হয়েছিল পরের বুল সাইকেল শুরুর আগে।
    এই মুহূর্তে বিশেষজ্ঞদের 70 শতাংশের বিশ্বাস যে বিটিসি মার্কিন ডলার জোড়া জুনে 10,000-11,000  ডলার অঞ্চলে পৌঁছতে সক্ষম হবে। এবং 30 শতাংশ অপেক্ষা করছে এই জোড়াটির 8,000-8,500  ডলারে পতনের জন্য।

 

নর্ডএফএক্স অ্যানালিটিক্যাল গ্রুপ

 

Notice: These materials are not investment recommendations or guidelines for working in financial markets and are intended for informational purposes only. Trading in financial markets is risky and can result in a complete loss of deposited funds.


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)